কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের আইপিও অনুমোদন|113355|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের আইপিও অনুমোদন
নিজস্ব প্রতিবেদক

কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের আইপিও অনুমোদন

এয়ার কন্ডিশনার ও রেফ্রিজারেটরে ব্যবহৃত তামার পাইপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের আইপিও (প্রাথমিক গণপ্রস্তাব) অনুমোদন দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। কোম্পানিটি পুঁজিবাজারে অভিহিত মূল্যে ২ কোটি শেয়ার ছেড়ে ২০ কোটি টাকার মূলধন উত্তোলন করবে। গতকাল বিএসইসির নিয়মিত সভায় এ কোম্পানির আইপিওর অনুমোদন দেওয়া হয়।

পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলিত অর্থ প্ল্যান্ট ও যন্ত্রপাতি ক্রয় ও স্থাপন, ভবন নির্মাণ, ব্যাংকঋণ পরিশোধ ও আইপিও খাতে ব্যয় করবে। ২০১৮ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরে কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের সমন্বিত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ১ টাকা ৩ পয়সা ও শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ১২ টাকা ৬ পয়সা। ভারিত গড় হারে ইপিএস দাঁড়ায় ৮৭ পয়সা। এ কোম্পানির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিল এমটিবি ক্যাপিটাল লিমিটেড। কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনায় দেখা যায়, গত দুই বছরে কোম্পানির পণ্য বিক্রি হঠাৎ করেই বৃদ্ধি পেয়েছে। ২০১৬ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির পণ্য বিক্রি থেকে আয় ছিল ৮ কোটি ৭০ লাখ টাকা। পরের বছর ২০১৭ সালে পণ্য বিক্রি থেকে আয়ে চমক দেখা দেখা যায়। ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত কোম্পানির আয় এক লাফে ৩৩ কোটি ৪৬ লাখ টাকায় উন্নীত হয়। এ হিসাবে এক বছরে কোম্পানির পণ্য বিক্রি থেকে আয় বাড়ে ২৮৪ শতাংশ। পরের বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানির রেভিনিউ আসে ৫২ কোটি ৬৬ লাখ টাকা, যা আগের বছরের তুলনায় ৫৭ শতাংশ। এ হিসাবে দুই বছরের ব্যবধানে কপারটেকের পণ্য বিক্রি থেকে আয় বেড়েছে ৫০৫ শতাংশ।  কপারটেকের পরিশোধিত মূলধন ৪০ কোটি টাকা, যা আইপিও পরবর্তী সময়ে ৬০ কোটি টাকায় উন্নীত হবে। ২০১৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ছিল ১০ কোটি টাকা। আর চলতি বছরের ৬ জুন পরিশোধিত মূলধন ৪০ কোটি টাকায় উন্নীত হয়। ২০১৮ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরে এ কোম্পানির পুঞ্জীভূত মুনাফার পরিমাণ হচ্ছে ৮ কোটি ২৪ লাখ টাকা। ২০১২ সালের ১৬ অক্টোবর সিলেটের হবিগঞ্জে কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজ প্রতিষ্ঠিত হয়। আর ২০১৪ সালের জুনে বাণিজ্যিক উৎপাদনে যায় এ কোম্পানি। কোম্পানিটি মূলত এয়ার কন্ডিশনার ও রেফ্রিজারেটরে ব্যবহৃত তামার পাইপ উৎপাদন করে থাকে। এছাড়া তার, বাস বার, স্ট্রিপ ইত্যাদি তামাপণ্য উৎপাদন করে থাকে। কপারটেক ইন্ডাস্ট্রিজের উদ্যোক্তা হচ্ছেন- আব্বাসি আদম আলী ও রশিদা আব্বাস। কোম্পানির মোট শেয়ারের ৪৫ দশমিক ১ শতাংশ রয়েছে উদ্যোক্তা পরিচালকদের হাতে, যা আইপিও পরবর্তী সময়ে ৩০ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশে নেমে আসবে।