আপনি বড় মাপের মানুষ মাস্তানি আচরণ বন্ধ করুন|113389|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
ড. কামালকে শেখ হাসিনা
আপনি বড় মাপের মানুষ মাস্তানি আচরণ বন্ধ করুন
বিশেষ প্রতিনিধি

আপনি বড় মাপের মানুষ মাস্তানি আচরণ বন্ধ করুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল ধানমন্ডির সুধা সদনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে চাঁদপুর, কুষ্টিয়া ও নওগাঁ জেলায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য রাখেন - ফোকাস বাংলা

নির্বাচন কমিশনে (ইসি) জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন মাস্তানি ও সন্ত্রাসী আচরণ করেছেন অভিযোগ করে তাকে এ থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। গতকাল বুধবার রাজধানীর  ধানমণ্ডি  নিজ বাসভবন সুধা সদন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কুষ্টিয়ায় নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য দেওয়ার সময় তিনি এ আহ্বান জানান।

এদিন চাঁদপুর, নওগাঁর জনসভায়ও বক্তব্য দেন শেখ হাসিনা। কুষ্টিয়ার জনসভায় দেওয়া বক্তব্যের শুরুতে তিনি প্রার্থীদের পরিচয় করিয়ে দেন। ওই সময় নির্বাচন ভবনে গত মঙ্গলবার ড. কামালের বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এত বড় মাপের মানুষ, এত বড় আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন একজন মানুষ; তার মুখে এ রকম নোংরা ভাষা মানায় না।’ তিনি আরো বলেন, ‘আপনারা এ রকম সন্ত্রাসী আচরণ বন্ধ করুন। মাস্তানি ও সন্ত্রাসী আচরণ দেশের মানুষ পছন্দ করে না।’

সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নষ্ট করছে বলে অভিযোগ করেন শেখ হাসিনা। তার দাবি, জনগণ নৌকায় ভোট দিতে উদগ্রীব। তাই ঐক্যফ্রন্ট দেশজুড়ে সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে। এ সময় তিনি বলেন, ‘আজ বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে আমাদের নেতাকর্মীদের ওপর অত্যাচার করে যাচ্ছে, বোমা হামলা করে যাচ্ছে, নির্বাচনী প্রচার মিছিলের ওপর হামলা করছে, আমাদের নির্বাচনে অফিস পোড়াচ্ছে। বিভিন্ন জায়গায় আমাদের ৪৫ জন আওয়ামী লীগ কর্মী নিহত হয়েছেন ঐক্যফ্রন্ট, বিএনপি-জামায়াত জোটের হাতে। যেখানেই সুযোগ পাচ্ছে, তারা সেখানেই হামলা করে যাচ্ছে।’

বিএনপি ও জোটসঙ্গীদের জনগণ ভোট দেবে না বলে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘তারা (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও বিএনপি-জামায়াত) জানে, সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, এতিমের অর্থ আত্মসাৎকারী মানি লন্ডারিং, দুর্নীতিবাজ, অগ্নিসংযোগকারীদের মানুষ ভোট দেবে না।’

জনগণের উদ্দেশে সরকারপ্রধান বলেন, ‘জনগণের কাছে আহ্বান জানাব, নির্বাচন জনগণের ভোটের অধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ। আমরা এখানে দেখেছি— ঐক্যফ্রন্ট, তাদের আচার-আচরণ থেকে কেউই রেহাই পাচ্ছে না।’

ঐক্যফ্রন্ট নেতা ড. কামাল হোসেনের দিকে ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘তিনি নির্বাচন কমিশনে গিয়েও পুলিশকে গালিগালাজ করে এসেছেন। কোর্টে বসে অ্যাটর্নি জেনারেলকে নোংরা গালি দিয়েছেন। এখন আবার পুলিশ বাহিনীকে নোংরা গালি দিয়ে বসেছেন। সাংবাদিকদের ‘খামোশ’ বলে দেখে নেব হুমকি দিয়েছেন। এই আচরণ থেকে বোঝা যায়, তাদের নেতাকর্মীদের আচরণটা কতটা জঘন্য। আমরা এসবের তীব্র নিন্দা জানাই।’

উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ১০ বছরে মানুষের জন্য কাজ করেছি, আমরা দেশের উন্নয়ন করেছি। সকলে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে। ঐক্যবদ্ধ থাকলে নৌকাকে কেউ হারাতে পারবে না। প্রতিটি শ্রেণি-পেশার মানুষ ভালো আছে। আমরা জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস প্রায় নির্মূল করেছি। আগামীতে ক্ষমতায় আসতে পারলে দেশকে মাদকমুক্ত করব।’ তিনি আরো বলেন, ‘১০ বছরে দেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। আমরা এই ধারা বজায় রাখতে চাই। এ জন্য আপনারা নৌকায় ভোট দিন।’