‘হাওয়া ভবনের’ কর্মীসহ গ্রেপ্তার ৩ জন রিমান্ডে|113412|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
নির্বাচনে টাকা ছড়ানোর অভিযোগ
‘হাওয়া ভবনের’ কর্মীসহ গ্রেপ্তার ৩ জন রিমান্ডে
নিজস্ব প্রতিবেদক

‘হাওয়া ভবনের’ কর্মীসহ গ্রেপ্তার ৩ জন রিমান্ডে

রাজধানী থেকে সাড়ে আট কোটি নগদ টাকা ও ১০ কোটি টাকার চেকসহ গ্রেপ্তার ‘হাওয়া ভবনের’ কর্মচারী জয়নাল আবেদীনসহ তিন জনকে মুদ্রাপাচার প্রতিরোধ আইনের মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচ দিনের হেফাজতে পেয়েছে পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও মতিঝিল থানার এসআই ফারুক হোসেন দেশ রূপান্তরকে বলেন, আসামিদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। গত মঙ্গলবার র‌্যাব মতিঝিলে অভিযান চালিয়ে আমদানি-রপ্তানি ও ঠিকাদারি কোম্পানি ইউনাইটেড করপোরেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হায়দার আলী, আমেনা এন্টারপ্রাইজের ঝালকাঠি জেলার অফিস ব্যবস্থাপক আলমগীর হোসেন (৩৮) ও একই গ্রুপের জিএম (এডমিন) জয়নাল আবেদীনকে (৪৫) গ্রেপ্তার করে। এ সময় তাদের কাছে সাড়ে আট কোটি নগদ টাকা ও ১০ কোটি টাকার চেকের সঙ্গে শরীয়তপুর-৩ আসনের বিএনপি প্রার্থী মিয়া নুরুদ্দিন আহমেদ অপুর প্রচারপত্র পাওয়া যায়। এ ঘটনায় মুদ্রাপাচার প্রতিরোধ আইনে মতিঝিল থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় এই তিনজনের সঙ্গে পলাতক আসামি হিসেবে তিনজনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। যাদের মধ্যে নুরুদ্দিন আহমেদ অপু ও শ্যামপুরের মাহমুদুল হাসানের নাম আছে।

র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কালো টাকার ব্যবহার নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তিরা। এদের মধ্যে জয়নাল আবেদীন হাওয়া ভবনের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। মতিঝিলের সিটি সেন্টারে ইউনাইটেড করপোরেশন ও ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজ নামের অফিস খুলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভয়াবহ সহিংসতার পরিকল্পনা করছিল একটি রাজনৈতিক দল। এ জন্য তারা দেশের বিভিন্ন এলাকায় কোটি কোটি টাকা ছড়িয়েছে।

র‌্যাব সদর দপ্তরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের উপপরিচালক মিজানুর রহমান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজের মালিক মাহমুদুল হাসান। তার সঙ্গে আরো একাধিক ব্যক্তিকে খোঁজা হচ্ছে। মতিঝিল থানায় মামলা হলেও এর তদন্তভার গ্রহণের জন্য র‌্যাবের পক্ষ থেকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করা হয়েছে। তদন্তভার পাওয়ার আগ পর্যন্ত র‌্যাব ছায়া তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে।