‘উর্দুভাষীদের অধিকাংশ ভোটও পাবে নৌকা’|113521|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
‘উর্দুভাষীদের অধিকাংশ ভোটও পাবে নৌকা’
মদিনা জাহান রিমি

‘উর্দুভাষীদের অধিকাংশ ভোটও পাবে নৌকা’

ঢাকা- ১৩ আসনের ৩ লাখ ৭২ হাজার ভোটারের প্রায় ৩০ হাজার উর্দুভাষী। এই আসনের প্রার্থীরা শেষ দিনের প্রচার এবং গণসংযোগে এই অংশের ভোট গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন।

২০০৮ সালে ভোটাধিকার পাওয়া উর্দুভাষীরাও একই সঙ্গে এবারের নির্বাচন নিয়ে উৎসাহ প্রকাশ করছে। সারা দেশে আওয়ামী লীগের প্রতীক নৌকা নামে পরিচিত হলেও, এখানে তা ‘কাশতি’। বিএনপির প্রতীক উর্দুতে ‘ধানি’ নামে পরিচিত জেনেভা ক্যাম্পের মানুষের কাছে। এবার নৌকার প্রার্থী ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান। ধানের শীষের প্রার্থী বিএনপি আবদুস সালাম। দুই প্রার্থীরই দাবি, উর্দুভাষীরা তাদের ভোটে জয় এনে দেবে। অথচ ভোটের শেষ দিনের প্রচারেও বিএনপির পক্ষে ভোট চাইতে এখনো কেউ যাননি উর্দুভাষীদের গলিতে। মোহাম্মদপুরের বিএনপি নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেন, হামলা ও বাধার কারণে তারা প্রচারে নামতে পারছেন না। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাদেক খান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘উর্দুভাষীদের অধিকাংশ ভোট পাবে নৌকা। আমরা সব দলকে স্বাগত জানিয়েছি ক্যাম্পের ভেতর প্রচার করতে। আমরা চাই ওরা বিচ্ছিন্ন না থেকে ভোটকেন্দ্রমুখী হোক।’

বিএনপির প্রার্থী সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘উনি তো এলাকায় বসবাস করেন না, তাই তাদের দলেরই ক্ষোভ আছে তাকে নিয়ে। সে থাকে ফকিরাপুলে। সেজন্য তাদের সিনিয়র নেতারাই প্রচারে আসেন না। সে নিজেই পজিটিভ ইমেজ তৈরি করতে অসফল।’ তিনি আরো জানান, তারা এরই মধ্যে উর্দুভাষী নেতাদের সঙ্গে ধারাবাহিক বৈঠক করেছেন। নেতারা আশ্বাস দিয়েছেন, ক্যাম্পের উন্নয়নের স্বার্থে তারা নৌকার পক্ষেই থাকবেন। তারা মনে করেন নৌকা নির্বাচিত হলে মাদকমুক্ত হবে মোহাম্মদপুরের ক্যাম্পগুলো।

জেনেভা ক্যাম্পের চায়ের দোকানি ফায়াজ বলেন, ‘“পাকিস্তানি” বলে যে অপবাদ দেওয়া হয়, আমরা তা চাই না আর। বাংলাদেশে এই দেশের নাগরিকের মতো বাঁচতে চাই।’

এই আসনের প্রার্থী এবং কর্মীরা, আগামী ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজ নিজ প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে স্বতঃস্ফূর্তভাবে নেমেছেন।