জামায়াতের ২৫ নেতা থাকছেন নির্বাচনে|113622|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
প্রার্থিতা প্রশ্নে রুল
জামায়াতের ২৫ নেতা থাকছেন নির্বাচনে
নিজস্ব প্রতিবেদক

জামায়াতের ২৫ নেতা থাকছেন নির্বাচনে

জামায়াতে ইসলামীর ২৫ নেতার নির্বাচনে অংশগ্রহণের বৈধতা দিয়ে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। তবে এ বিষয়ে কোনো স্থগিতাদেশ দেয়নি উচ্চ আদালত। এর ফলে জামায়াত নেতাদের নির্বাচনে অংশগ্রহণে কোনো বাধা নেই বলে জানিয়েছেন ইসির আইনজীবী।

এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুল জারি করে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি), ইসি সচিব, জামায়াতের ২৫ নেতাসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে আদেশে।

বিএনপির প্রতীক ধানের শীষে ২২ ও স্বতন্ত্র হিসেবে তিন জামায়াত নেতা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। নির্বাচনে তাদের অংশগ্রহণের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত বুধবার হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের মহাসচিব রেজাউল হক চাঁদপুরীসহ চারজন। গতকাল রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার তানিয়া আমীর। ইসির পক্ষে ইয়াসিন খান এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। আর জামায়াত নেতাদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল।

পরে ইসির আইনজীবী ইয়াসিন খান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘হাইকোর্ট যেহেতু কোনো স্থগিতাদেশ বা তাদের অযোগ্য ঘোষণা করেনি, তাই ইসির সিদ্ধান্ত বহাল রইল। নির্বাচনে তাদের অংশ নিতে বাধা নেই।’

এর আগে জামায়াতের ওই নেতাদের মনোনয়নপত্রের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছিলেন চারজন। পাশাপাশি তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করতে ইসিতেও আবেদন করা হয়। গত ১৮ ডিসেম্বর হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ এক আদেশে বিষয়টি নিষ্পত্তি করতে ইসিকে তিন কার্যদিবস সময় বেঁধে দেয়। পরে ইসি জানায়, ওই ২৫ জনের মনোনয়নপত্র আইনগতভাবে বাতিলের কোনো সুযোগ নেই। ২৪ ডিসেম্বর ইসির এক চিঠিতে আবেদনকারীদেরও বিষয়টি জানানো হয়। পরে ইসির চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট করেন তারা।