বাস থেকে নামার সময় আরেক বাসের ধাক্কা, নিহত ৩|113842|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১২:৫৮
বাস থেকে নামার সময় আরেক বাসের ধাক্কা, নিহত ৩
চট্টগ্রাম ব্যুরো

বাস থেকে নামার সময় আরেক বাসের ধাক্কা, নিহত ৩

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় কোরিয়ান ইপিজেডের পোশাক শ্রমিকদের পরিবহনকারী দুটি বাসের সংঘর্ষে ৩ শ্রমিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ৩৫ জন শ্রমিক।

শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- আবদুল লতিফ (৪৫), ইরফান (২৮) ও রাজিয়া সুলতানা (২৫)। নিহতদের মধ্যে আবদুল লতিফের বাড়ি নরসিংদী জেলায় বলে জানা গেছে। তিনি ওই কারখানার ১৫ নং কাটিং সেকশনের চিফ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে কোরিয়ান ইপিজেডের কর্ণফুলী স্যু ইন্ডাস্ট্রিজের (কেএসআই) শ্রমিকরা গাড়ি থেকে নামার সময় আরেকটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে শ্রমিকদের ওপর তুলে দেয়।

এতে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলে মারা যান আবদুল লতিফ নামের একজন শ্রমিক। গুরুতর আহত হন ৩২ জন শ্রমিক।

আহতদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথে রাজিয়া সুলতানা ও ইরফান মারা যান।

এদিকে দুর্ঘটনার পর শ্রমিকরা কাজে যোগ না দিয়ে বিক্ষোভ করেছেন। এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা তিনটি বাসে আগুন দেয়।

ঘটনার পর পর ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গেলেও আগুন নেভাতে দেয়নি বিক্ষুব্ধ শ্রমিকেরা। এমনটি দাবি করেছেন আনোয়ারা ফায়ার সার্ভিসের সাব-অফিসার মো. মজিবুর রহমান।

আহতদের মধ্যে উজ্জ্বল কান্তি দে (৩০), তানিয়া আক্তার (২৫), ইসপিকা চৌধুরী (২৬), জয়া (২৪), রমা চৌধুরী (২৫), রূমপি (২৮), নাহিদা (২২), পিয়াংকা (২৪), নুর জাহান (২৩), রহিমা (২৪), সাথী (১৯), কাউছার আক্তার (২০), শাখী (২০), তৌহিদুল (৩০), সুমন কান্তি দে (৩৫), নারগিস (২৫), লাভলী (১৮), মিতালি (৩০), রাজু বড়ুয়া (৩২), আইরিন (১৯), চেমন আরা (১৮), ইয়ামিন (১৮), শামীমা (২৪), উত্তম (৪৭), কাকলী (২২), রহিমা (২৩), মিনতি (৩৯), শুকলা (১৮), রুবি (৩০), রুবি আক্তার (২৫), তানিয়া (২০), আমিন (৩৩), বিশ্বজিৎ (৩৭), ফারুক (৪৯) এবং তৈয়বা সুলতানা (২০)কে  চমেক ভর্তি করা হয়েছে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই মো. আলাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।