ড. কামালের সংবাদ সম্মেলন শেষ পর্যন্ত ভোটে থাকবে ঐক্যফ্রন্ট|113981|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
ড. কামালের সংবাদ সম্মেলন শেষ পর্যন্ত ভোটে থাকবে ঐক্যফ্রন্ট
নিজস্ব প্রতিবেদক

ড. কামালের সংবাদ সম্মেলন শেষ পর্যন্ত ভোটে থাকবে ঐক্যফ্রন্ট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপিপ্রধান জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট শেষ পর্যন্ত ভোটের লড়াইয়ে থাকবে বলে জানিয়েছেন জোটের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন। পাশাপাশি তরুণ ভোটারসহ সকলকে সকাল সকাল কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে বলেছেন তিনি। গতকাল শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ভোট বর্জন করতে পারে বলে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মন্তব্যের দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে কামাল বলেন, ‘আমরা বহুবার বলেছি, শেষ পর্যন্ত নির্বাচনে থাকব।’

তরুণদের উদ্দেশে তিনি বলেন, তোমরা যারা প্রথমবার ভোট দেওয়ার সুযোগ পেয়েছ, তারা সময়মতো ভোট দিতে যাবে। মনে রাখবে, যদি তুমি ভয় পাও তবেই তুমি শেষ, যদি তুমি ঘুরে দাঁড়াও, তবেই তুমি বাংলাদেশ। ভোটারদের সকাল সকাল কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা (ভোটার) ভয় পাবেন না, আপনারা গেলে দুর্বৃত্তরাই পালিয়ে যাবে। জনগণের শক্তির সঙ্গে তারা পারবে না।

ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক বলেন, আপনার ওপর যে দায়িত্ব তা সততার সঙ্গে পালন করবেন। এটা করলে আপনাদের সম্মান বাড়বে। ভোটারের মুখের হাসির ওপরই নির্ভর করছে আপনার দায়িত্ব পালনে সফলতা ও তৃপ্তি।

সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আনসার, ভিডিপি, কোস্টগার্ডসহ আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে নিয়োজিতদের উদ্দেশে ড. কামাল বলেন, আপনারা অতীতের মতো গৌরবময় ভূমিকা পালন করুন। বিশ্বব্যাপী শান্তি রক্ষায় আপনাদের ভূমিকা প্রশংসিত হচ্ছে। সেই প্রশংসার ফলে সারা বিশ্বে আপনাদের সুযোগ বেড়েছে। কোনো অবস্থাতেই যেন তা ব্যাহত না হয়, সে ব্যাপারে আপনারা সতর্ক থাকবেন।

গণফোরাম সভাপতি বলেন, প্রবাসী ভাই-বোনেরা এবং নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য যারা ভোট দিতে পারবেন না আপনারা আপনাদের স্বজনদের ফোন করে ভোট দিতে যেতে বলুন। তারা যদি ভোট দিতে পারেন সে আনন্দের অংশীদার আপনিও হবেন। তিনি বলেন, রাত পোহালেই ভোট, দেশে এখন উৎসবের আবহ থাকার কথা। কিন্তু মানুষের মনে এখনো সংশয়-সন্দেহ। এ সংশয় দূর করা খুবই জরুরি।

‘নির্বাচন সুষ্ঠু হবে কি না, আপনি কী মনে করছেন’ সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে ড. কামাল বলেন, ‘আমাদের প্রত্যাশা, আমরা অবশ্যই আশা করি, আমরা জিতব, সবাই এখন পরিবর্তন পরিবর্তন বলে চিৎকার করছে। নির্বাচনে আমরাই জিতব যদি কোনো দুই নম্বরি না হয়।’

বিএনপির সঙ্গে ড. কামালের কোনো দ্বন্দ্ব বা ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘না। বিএনপির সঙ্গে কোনো দ্বন্দ্ব তৈরি হয়নি। বিএনপির সঙ্গে চমৎকার সম্পর্ক রয়েছে।’

কোনো দলের কার্যালয় রেখে ডিআরইউতে সংবাদ সম্মেলন করার পেছনে জোটের মধ্যে ঐক্যের ঘাটতি কাজ করেছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এই হল নেওয়াটা কোনোভাবে প্রমাণ করে না যে, আমাদের মধ্যে ঐক্য নেই। আমাদের মধ্যে ঐক্য আরো সুসংহত হয়েছে। কোথাও বড় হল না পেয়ে এখানে এসেছি। সংবাদ সম্মেলন করার জন্য একটি হোটেলে বুকিং দেওয়ার চেষ্টা করলে তারা বুকিং দিতে অস্বীকার করেন।’

২০-দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান সাংবাদিকদের বলেন, ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার পর থেকে গত শুক্রবার পর্যন্ত বিরোধী দলের ১১ হাজার ৫০৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে; মামলা হয়েছে ৯২৭টি। বিরোধী দলের অফিস, মিছিল ও কার্যক্রমে হামলা করা হয়েছে ২ হাজার ৮৯৬ বার। এতে ১৩ হাজার ২৫২ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। মারা গেছেন ৯ জন। শুক্রবার এক দিনে গ্রেপ্তার করা হয়েছে ১ হাজার ১২৭ জন। মামলা দায়ের করা হয়েছে ৫৯টি। ২৯৮ জন প্রার্থীর মধ্যে ১৭ জন এখনো কারাগারে। এই ১৭ জনের মধ্যে ৭ জন বন্দি হয়েছেন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন যাদের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেছে তার মধ্য থেকে আদালতে বাতিল হয়েছে ১৬ জনের। ১৯ জনের প্রার্থিতা বাতিল হলেও গত শুক্রবার ৩ জন ফিরে পেয়েছেন। আমরা যাদের মনোনয়ন দিয়েছিলাম তার মধ্যে ৮ আসনে আদালত থেকে বদল করে দেওয়া হয়েছে।’

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল এ সময় উপস্থিত ছিলেন।