ঢাকার কোনো কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ নয় : ডিএমপি|114004|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
ঢাকার কোনো কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ নয় : ডিএমপি
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকার কোনো কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ নয় : ডিএমপি

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘প্রত্যেকটি নির্বাচনেই কিছু ঝুঁকি থাকে। কারণ প্রার্থী, তাদের এজেন্ট, তাদের কর্মী, তারা অনেক ক্ষেত্রে অতিউৎসাহী হয়ে নানা ধরনের বলপ্রয়োগ করা বা নানা ধরনের অনিয়ম করার অপচেষ্টা করে থাকে। সেই বিবেচনায় আমরা কিছু কিছু কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ বলেছি। কেন্দ্রের অবস্থান, কমিউনিকেশন, তার স্ট্রাকচার সবকিছু মিলেই কিন্তু ঝুঁকিপূর্ণ বলা হয়ে থাকে। ইনফ্যাক্ট, আমি বলব, ঢাকা মহানগরীর কোনো কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ নয় ওই অর্থে।’ গতকাল শনিবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশ সদর দপ্তরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারীসহ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিঘ্নন সৃষ্টিকারীদের নিয়ন্ত্রণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সর্বোচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘এ উপলক্ষে নির্বাচন কমিশন, জেলা প্রশাসক ও ঢাকা জেলা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনে সুষ্ঠু ও সহায়ক পরিবেশ নিশ্চিত করতে আজ (শনিবার) সকাল থেকেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মোবাইল পেট্রোল শুরু হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে এখন থেকে নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা কন্ট্রোলরুমে সার্বক্ষণিক নিয়োজিত রয়েছি। শান্তিপূর্ণভাবে এই কার্যক্রম সমাপ্ত করার জন্য নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে আমরা আমাদের পেশাদারি কার্যক্রম চালিয়ে যাব।’

এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘আমরা ভোটারদের অনুরোধ করব নির্ভয়ে, নিশ্চিন্তে, আপনি ভোটকেন্দ্রে এসে, আপনার ভোট আপনার পছন্দের প্রার্থীকে আপনি প্রদান করবেন। সে জন্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সশস্ত্র বাহিনীÑ আমরা আপনাদের পাশে থাকব এবং নিরঙ্কুশ নিরাপত্তা দেব ইনশাল্লাহ।’

গত কয়েক দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ড. কামাল হোসেনসহ কয়েকজনকে হত্যার হুমকি বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘দেশের প্রত্যেকটি নাগরিকের নিরাপত্তা আমাদের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। শুধু ড. কামাল হোসেন নয়, আমাদের শুধু জাতীয় নেতা নয়, যে সকল নাগরিকের নিরাপত্তায় হুমকি আছে বলে আমাদের কাছে তথ্য ও অনুসন্ধানে প্রমাণিতÑ তাদের প্রত্যেকের নিরাপত্তার ব্যাপারে আমরা সতর্ক রয়েছি এবং তাদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য প্রকাশ্য এবং গোপনে সবধরনের কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে এবং এটা থাকবে।’

ডিএমপি কমিশনার হুঁশিয়ার করে বলেন, ‘যদি কেউ কোনোভাবে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গ করে পেশিশক্তি ব্যবহারের সামান্য অপচেষ্টা করে অথবা কেউ যদি ভীতি তৈরির মাধ্যমে জ্বালাও-পোড়াও, সন্ত্রাসী কার্যক্রমের কোনো ধরনের চিন্তা করে তাকে অত্যন্ত কঠোরভাবে দমন করা হবে। এই নির্বাচন যাতে সকল মহলের কাছে উৎসবের হয়, যাতে আতঙ্কের না হয়, সে জন্য আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। এককথায় বলতে পারি, এখন থেকে শুরু করে নির্বাচন শেষ না হওয়া পর্যন্ত ঢাকা মহানগরী নিরাপত্তার চাদরে আবৃত থাকবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘সশস্ত্র বাহিনী, বিজিবি, আনসার, পুলিশ এবং র‌্যাব আমাদের মধ্যে চমৎকার সমন্বয় রয়েছে। এই সমন্বয়ের মধ্য দিয়ে এই নির্বাচনী কার্যক্রম অত্যন্ত সুন্দরভাবে সমাপ্ত হবে বলে আমরা দৃঢ়ভাবে আশাবাদী।’

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে উৎসবমুখর। এটি নিয়ে কোনো শঙ্কা বা আতঙ্ক থাকার কোনো কারণ নেই। আমরা জনগণের পাশে আছি এবং প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে জনগণের এবং রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত আছি।’