ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের গুলিতে যুবক নিহত|114051|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩০ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:১০
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের গুলিতে যুবক নিহত
ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের গুলিতে যুবক নিহত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনে ভোট চলাকালে বেশ কিছু সহিংসতার খবর পাওয়া গেছে। এরমধ্যে পুলিশের গুলিতে প্রাণ গেছে এক যুবকের।

এছাড়া বিএনপি প্রার্থীর বাড়িতে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। হামলার শিকার হয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীও।

রোববার সকাল ১১টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও মহাজোট প্রার্থী র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী রাজঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শনে গেলে বিএনপির সমর্থকরা তার ওপর চড়াও হয়। এসময় তাদের হামলায় তাকে বহনকারী গাড়ির (ঢাকা মেট্রো-গ-১৫-৪৬৪৬) পেছনের অংশ ভেঙে যায়। আহত হন আওয়ামী লীগ কর্মী আলমগীর ও বিপ্লব।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালালে রাজঘর গ্রামের সাঈদ মিয়ার ছেলে ইসরাইল (১৮) ও ছাদু মিয়ার ছেলে জাবেদ (১৬) গুলিবিদ্ধ হন। জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে ইসরাইল মারা যান। আশঙ্কাজনক অবস্থায় জাবেদকে ঢাকায় পাঠানো হয়। এ ঘটনার পর রাজঘর ভোটকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হয়।

রাজঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা সত্যরঞ্জন রায় জানান, সকাল ১১টার দিকে মহাজোট প্রার্থী এ আসনে আসার পর পরই দুর্বৃত্তরা তার গাড়িতে হামলা চালায়। এ কেন্দ্রের ছয়টি কক্ষের মধ্যে দুটি থেকে দুটি ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। ১৩টি বই শেষ হয়েছিল। তবে পৌনে ১১টা থেকেই ভোট গ্রহণ বন্ধ রয়েছে।

এদিকে বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে পুনিয়াউটে বিএনপির প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহবুব শ্যামলের কর্মীদের সঙ্গে নৌকার সমর্থকদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। একপর্যায়ে নৌকার কর্মীরা ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় বেশকিছু ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে।

একদল দুর্বৃত্ত এসময় শ্যামলের বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। বাড়ির সামনে রাখা দুটি মাইক্রোবাস আগুনে পুড়িয়ে দেয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়নের শ্যামপুর-আনন্দপুর গ্রামে বিএনপির সমর্থকদের হামলায় অগ্রণী ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার মোবারক হোসেন আহত হন।

সকালে শহরের নিয়াজ মোহাম্মদ স্কুল ভোট কেন্দ্রে ৮/১০টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে।

অন্যদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের সরাইল উপজেলার নোয়াগাঁও পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বেলা ১১টার দিকে দফায় দফায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১৫-২০ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এ সময় স্বতন্ত্র প্রার্থী মঈনউদ্দিন মঈন ও তার স্ত্রী কামরুন্নাহার লাবনীসহ ১০জন আহত হন।