বগুড়ায় বিএনপির ২ আসন|114140|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:৪৩
বগুড়ায় বিএনপির ২ আসন
বগুড়া প্রতিনিধি

বগুড়ায় বিএনপির ২ আসন

বিএনপির ঘাঁটি বগুড়ায় দলটি পেয়েছে দুই আসন। বেসরকারিভাবে বগুড়ার ৭টি সংসদীয় আসনের চূড়ান্ত ফলাফলে দেখা যায় দু’টিতে বিএনপি, দু’টিতে আওয়ামী লীগ, দু’টিতে মহাজোট সমর্থিত জাতীয় পার্টি ও একটিতে ঐক্যফ্রন্ট সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসন থেকে আওয়ামী লীগের আব্দুল মান্নান নৌকা প্রতীকে ২লাখ ৬৭ হাজার ৯৪৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির কাজী রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ১৬ হাজার ৬৯০ ভোট।  

বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনে মহাজোট সমর্থিত জাতীয় পার্টির শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ লাঙ্গল প্রতীকে ১ লাখ ৮৫ হাজার ৩৬৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্যফ্রন্টের মাহমুদুর রহমান মান্না ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ৫৯ হাজার ৬০২ ভোট।

বগুড়া-৩ (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) আসনে জাতীয় পার্টির নূরুল ইসলাম তালুকদার ১ লাখ ৫৭ হাজার ৭৯২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মাছুদা মোমিন পেয়েছেন ৫৮ হাজার ৫৮০ ভোট।

বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে বিএনপির মোশারফ হোসেন ১ লাখ ২৮ হাজার ৫৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাসদের রেজাউল করিম তানসেন নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৮৬ হাজার ৪৮ ভোট।

বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে আওয়ামী লীগের হাবিবর রহমান ৩ লাখ ৩১ হাজার ৫৪৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির জি এম সিরাজ পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৭৪০ ভোট।

বগুড়া-৬ (সদর) আসনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ২ লাখ ৫ হাজার ৯৮৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির নূরুল ইসলাম ওমর পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৯৬১ ভোট।

বগুড়া-৭ (গাবতলী-শাজাহানপুর) আসনে ঐক্যফ্রন্ট সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল করিম বাবলু ট্রাক মার্কায় ১ লাখ ৮৯ হাজার ৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী ফেরদৌস আরা খান ডাব প্রতীকে পেয়েছেন ৬৬ হাজার ২৯২ ভোট।

এই আসনে মহাজোট সমর্থিত জাতীয় পার্টির আলতাফ আলী লাঙ্গল প্রতীকে পেয়েছেন ২৬ হাজার ৫৪ ভোট। এই আসনে বিএনপির প্রার্থী মোরশেদ মিল্টন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় উচ্চ আদালত থেকে তাঁর প্রার্থিতা বাতিল করা হয়। পরে স্বতন্ত্র প্রার্থী বাবলুকে সমর্থন দেয় ঐক্যফ্রন্ট।