বিভিন্ন স্থানে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ|114202|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
বিভিন্ন স্থানে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ
রূপান্তর ডেস্ক

বিভিন্ন স্থানে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ

শঙ্কা আর উৎকণ্ঠার মধ্যেও বিভিন্ন স্থানে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। তবে কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট আর পোলিং এজেন্টদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ উঠেছে বিএনপির পক্ষ থেকে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-
বাগেরহাট : কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ হয়েছে। ভোটকেন্দ্রগুলোতে ছিল কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। সকাল থেকেই কনকনে শীতের মধ্যে ভোট দিতে আসেন ভোটাররা। কেন্দ্রগুলোতে পুরুষের চেয়ে নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিল বেশি।

চুয়াডাঙ্গা : জেলার দুটি সংসদীয় আসনের অধিকাংশ কেন্দ্রে ভোটাররা লাইনে দাঁড়িয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিয়েছেন। তবে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, সরকারদলীয় লোকজন কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট দিয়েছে। পোলিং এজেন্টদের ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

পঞ্চগড় : তীব্র শীত আর কুয়াশা উপেক্ষা করে জেলায় উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট সম্পন্ন হয়েছে। সকাল থেকেই দলে দলে ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে যান। ছেলের কোলে চড়ে পঞ্চগড়-১ আসনের নতুনবস্তি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিতে আসেন পুতুল রানী (৭৫)। তিনি দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘জীবন শেষ আর কয়দিন বাঁচিম। ভোট দিবার আশা ছিল। ছেলের কোলে চড়ে এলাম।’ জেলায় বিপুলসংখ্যক নারী ভোটারের উপস্থিতি দেখা গেছে।

হবিগঞ্জ : উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে জেলার সব কটি আসনে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। হবিগঞ্জ সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন হবিগঞ্জ-৩ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. আবু জাহির।

পটুয়াখালী : তীব্র শীত উপেক্ষা করে পটুয়াখালীর ৪টি সংসদীয় আসনে ভোটগ্রহণ হয়েছে। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভোটকেন্দ্রে আসতে শুরু করেন ভোটাররা। কেন্দ্রগুলোতে নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিল বেশি। কলাপাড়া উপজেলার (পটুয়াখালী-৪) ধুলাসর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সকাল সাড়ে ৮টায় ভোট দেন মিলি বেগম। তিনি জানান, কোনো বাধা ছাড়াই নির্বিঘ্নে তিনি ভোট দিয়েছেন।

ফরিদপুর : অপ্রীতিকর কোনো ঘটনা ছাড়াই জেলায় শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ হয়েছে। এখানেও নারীদের উপস্থিতি ছিল বেশি।

নীলফামারী : নীলফামারীর চারটি আসনের ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি দেখা গেছে। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে ভোটগ্রহণ। শহরের উদয়ন শিশু বিদ্যাপীঠ কেন্দ্রে ভোট দেন লিপি আক্তার। তিনি বলেন, ‘শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রথম ভোট দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে। এখন নিজেকে একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে মনে হচ্ছে।’

মানিকগঞ্জ : জেলার ৪৮৩টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হওয়ার পর ভোটার উপস্থিতি কিছুটা কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়ে। জেলার তিনটি আসনে মোট ভোটার ১১ লাখ ১০ হাজার ৫৭৭ জন। এর মধ্যে নারী ৫ লাখ ৫৮ হাজার ৩২। আর পুরুষ ৫ লাখ ৫২ হাজার ৫৪৫।

দিনাজপুর : তীব্র শীতের মধ্যেও জেলার ছয়টি আসনে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ হয়েছে। দিনাজপুর-২ আসনের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী ৯টার দিকে বোচাগঞ্জের ধনতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন। দিনাজপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য ইকবালুর রহিম একাডেমি স্কুল কেন্দ্রে সকাল সোয়া ৯টায় ভোট দেন। আর দিনাজপুর-৪ আসনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী খানসামা টঙ্গুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে ভোট দেন।

ভোলা : শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে ভোটগ্রহণ। এ নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ভোলা-১ (সদর) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তবে বিএনপি প্রার্থী গোলাম নবী আলমগীর অভিযোগ করেন, ‘প্রিসাইডিং অফিসারের সামনেই সন্ত্রাসীরা ভোটারদের ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়েছে। তারা ভোট দিতে পারেননি।’

টাঙ্গাইল : কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে জেলার আটটি আসনে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। শীত উপেক্ষা করে ভোট দিতে দেখা গেছে ভোটারদের। আট আসনে মোট ভোটার ২৭ লাখ ৮ হাজার ৩৯৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ১৩ লাখ ৮৯ হাজার ৯১১ জন। আর নারী ১৪ লাখ ৪ হাজার ৪৮৭ জন।

গাইবান্ধা : কনকনে শীত উপেক্ষা করে গাইবান্ধার চারটি আসনের ৪৭৩টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে নেওয়া হয় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। গাইবান্ধা-২ (সদর) আসনের হরিণসিংহা আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ে ভোট দিতে আসা আসমা বেগম বলেন, ‘পছন্দের প্রার্থীকেই ভোট দিয়েছি। কেন্দ্রের নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখে ভালো লাগছে।’ আবদুল মালেক নামে আরেক ভোটার বলেন, ‘সকাল সকাল এসে ভোট দিলাম, কেন্দ্রের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ।’

যশোর : কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই শেষ হয়েছে ভোটগ্রহণ। কেন্দ্রগুলোতে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারের উপস্থিতি বাড়ে। ভোটারদের নিরাপত্তায় নেওয়া হয় বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

আখাউড়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ আসন আখাউড়ায় শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হয়েছে। সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ শামছুজ্জামান বলেন, উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটাররা ভোট দিয়েছেন। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

সীতাকুণ্ড : অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই অবাধ, সুষ্ঠু ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এখানে সব ভোটারকে নিজ নিজ কেন্দ্রে লাইনে দাঁড়িয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিতে দেখা যায়। তবে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক তফাজ্জল হোসেন বিএনপির কোনো নেতাকর্মীকে ভোটকেন্দ্রে যেতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন।

হাকিমপুর (দিনাজপুর) : দিনাজপুর-৬ আসনে কোনো বিশৃঙ্খলা ছাড়াই শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুরুতে ভোটারের উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। বিশেষ করে নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল বেশি।

খাগড়াছড়ি : বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ হয়েছে খাগড়াছড়িতে। উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে শীত উপেক্ষা করে ভোট দিতে আসেন ভোটাররা। রিটার্নিং কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম দেশ রূপান্তরকে বলেন, অত্যন্ত স্বাভাবিক ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ হয়েছে।

- ‘জীবন শেষ আর কয়দিন বাঁচিম। ভোট দিবার আশা ছিল। ছেলের কোলে চড়ে এলাম।’
- ‘শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রথম ভোট দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে। এখন নিজেকে একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে মনে হচ্ছে।’
- ‘পছন্দের প্রার্থীকেই ভোট দিয়েছি। কেন্দ্রের নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেখে ভালো লাগছে।’
-‘প্রিসাইডিং অফিসারের সামনেই সন্ত্রাসীরা ভোটারদের ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়েছে। তারা ভোট দিতে পারেননি।’