চাঁদপুরে সংঘর্ষ, আহত ৪০|114210|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
চাঁদপুরে সংঘর্ষ, আহত ৪০
চাঁদপুর প্রতিনিধি

চাঁদপুরে সংঘর্ষ, আহত ৪০

জেলার পাঁচটি সংসদীয় আসনে বিচ্ছিন্ন কয়েকটি সংঘর্ষ, ব্যালট বাক্স ছিনতাই, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ভাঙচুরের মধ্য দিয়ে ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। এসব ঘটনায় আহত হয়েছে কমপক্ষে ৪০ জন। তাদের মধ্যে আশঙ্কাজনক চারজনকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।  গতকাল রবিবার সকাল ৮টা থেকে শুরু হয় ভোটগ্রহণ। চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। সকাল থেকেই শীত উপেক্ষা করে ভোটাররা ভোটকেন্দ্রে আসেন। স্থানীয়রা জানায়, বেলা ১১টার দিকে চাঁদপুর-৪ আসনের হাজীগঞ্জ উপজেলার বড়কূল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে সাতটি ব্যালট বাক্স ছিনতাই করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এ ছাড়া হাজীগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন কেন্দ্রের সামনে প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় কমপক্ষে ৪০ জন আহতের খবর পাওয়া যায়। রামচন্দ্রপুর বাজারে এক ব্যবসায়ীর দোকান পুড়িয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।

দুপুরের দিকে চাঁদপুর-৩ আসনের হাইমচর উপজেলার উত্তর আলগী ইউনিয়নের সৈয়াল বাড়ির সামনে বিএনপি প্রার্থীর সমর্থকরা জড়ো হলে পুলিশ ধাওয়া করে। এ সময় পুলিশের একটি গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। তখন আওয়ামী লীগ কর্মী ও সমর্থকরা স্থানীয় ইউপি সদস্য সফিক ও তার ভাই আবদুল মান্নান আখন্দের ঘরে আগুন দেয়। সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়নের ইচুলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে বিএনপির বিক্ষুব্ধ কর্মী ও সমর্থকদের বিরুদ্ধে। পরে সেনাবাহিনী, বিজিবি ও পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।  এদিকে কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করেন চাঁদপুর-১ ও ২ আসনের বিএনপি প্রার্থী। গতকাল বিকেল ৩টার দিকে জেলা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে চাঁদপুর-১ আসনের মো. মোশারফ হোসেন ও চাঁদপুর-২ আসনের ড. জালাল উদ্দিন এ ঘোষণা দেন।