৫৯ প্রার্থীর বর্জন|114223|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
৫৯ প্রার্থীর বর্জন
রূপান্তর ডেস্ক

৫৯ প্রার্থীর বর্জন

কারচুপি, জালিয়াতি এবং এজেন্টদের বের করে দেওয়াসহ নানা অভিযোগ তুলে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় ৫৯ প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। তাদের মধ্যে ৫২ জন ধানের শীষ প্রতীকে লড়ছিলেন, চারজন জাতীয় পার্টির ও তিনজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা। নিজস্ব প্রতিবেদক, ব্যুরো, জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর

ঢাকা-১ (দোহার-নবাবগঞ্জ) : দুপুর ১২টায় নির্বাচন বর্জন করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সালমা ইসলাম।
ঢাকা-১৭ (গুলশান, বনানী, ঢাকা সেনানিবাস ও ভাষানটেকের একাংশ) : ধানের শীষের প্রার্থী বিজেপির চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ দুপুর সোয়া ১টার দিকে ভোট বর্জন করেন।  
ফরিদপুর-২ (নগরকান্দা-সালথা) : ধানের শীষের প্রার্থী শামা ওবায়েদ ইসলাম ভোট বর্জন করেছেন। তিনি নিজেও ভোট দেননি।
নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী আজহারুল ইসলাম মান্নান।
কিশোরগঞ্জ-১ (সদর-হোসেনপুর) : দুপুর ২টার দিকে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী মো. রেজাউল করিম খান চুন্নু।
কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) : দুপুর আড়াইটার দিকে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান রঞ্জন।
কিশোরগঞ্জ-৩ (করিমগঞ্জ-তাড়াইল) : দুপুর ২টার দিকে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জেএসডির সাইফুল ইসলাম।
কিশোরগঞ্জ-৪ (ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম) : দুপুর ২টার দিকে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফজলুর রহমান।
কিশোরগঞ্জ-৫ (বাজিতপুর-নিকলী) : দুপুর ২টার দিকে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন ধানের শীষের প্রার্থী শেখ মজিবুর রহমান ইকবাল।
কিশোরগঞ্জ-৬ (ভৈরব-কুলিয়ারচর) : দুপুর আড়াইটার দিকে ধানের শীষের প্রার্থী শরীফুল আলম ভোট বর্জন করেন।
জামালপুর-২ (ইসলামপুর) : দুপুর ১২টায় ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী সুলতান মাহমুদ বাবু।
জামালপুর-৩ (মেলান্দহ-মাদারগঞ্জ) : দুপুর ১২টায় ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল।
জামালপুর-৫ (সদর) : দুপুর ২টায় পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়ে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী অ্যাডভোকেট ওয়ারেছ আলী মামুন।
শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) : বেলা সাড়ে ১২টার দিকে সংবাদ সম্মেলনে ধানের শীষের প্রার্থী ফাহিম চৌধুরী ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।
শেরপুর-৩ : একই সময়ে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন ধানের শীষের প্রার্থী মাহমুদুল হক রুবেল।
রাজশাহী-৪ (বাগমারা) : দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী আবু হেনা।
রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) : দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী নজরুল ইসলাম।
সিরাজগঞ্জ-১ (কাজীপুর-সদর আংশিক) : দুপুরে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন ধানের শীষের প্রার্থী কণ্ঠশিল্পী রুমানা মোর্শেদ কনকচাঁপা।
সিরাজগঞ্জ-২ (কামারখন্দ-সদর আংশিক) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী রোমানা মাহমুদ।
সিরাজগঞ্জ-৩ (রায়গঞ্জ-তাড়াশ-সলঙ্গার আংশিক) : দুপুরে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন ধানের শীষের প্রার্থী আবদুল মান্নান তালুকদার।
সিরাজগঞ্জ-৪ (উল্লাপাড়া) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা রফিকুল ইসলাম খান।
সিরাজগঞ্জ-৫ (বেলকুচি-চৌহালী) : দুপুরে ধানের শীষের প্রার্থী আমিরুল ইসলাম আলীম সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জনের ঘোষণা দেন।
কুমিল্লা-১১ (চৌদ্দগ্রাম) : সকালে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা আবদুল্লাহ মো. তাহের।
লক্ষ্মীপুর-১ (রামগঞ্জ) : পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন ধানের শীষের প্রার্থী শাহাদাত হোসেন সেলিম।
লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর) : ধানের শীষের প্রার্থী আবুল খায়ের ভূঁইয়ার অভিযোগ, আওয়ামী লীগ উলঙ্গ হয়ে কেন্দ্র দখল করেছে।
লক্ষ্মীপুর-৩ (সদর) : ধানের শীষের প্রার্থী শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীর অভিযোগ, আগের রাতে কেন্দ্রগুলো দখলে নিয়ে সিল মেরে বাক্স ভর্তি করা হয়েছে।
লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি ও কমলনগর) : পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন ধানের শীষের প্রার্থী জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব।
খুলনা-১ (বটিয়াঘাটা-দাকোপ) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী আমির এজাজ খান ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী সুনীল শুভ রায়।
খুলনা-৩ (খালিশপুর-দৌলতপুর-খানজাহান আলী) : বাড়িতে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী রকিবুল ইসলাম বকুল।
খুলনা-৪ (রূপসা-দিঘলিয়া-তেরখাদা) : ধানের শীষের প্রার্থী আজিজুল বারী হেলাল জানান, প্রহসনের ভোটে থাকতে চাই না।
খুলনা-৫ (ডুমুরিয়া-ফুলতলা) : সকালে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা মিয়া গোলাম পরওয়ার।
খুলনা-৬ (কয়রা-পাইকগাছা) : সকালে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা আবুল কালাম আজাদ।
বাগেরহাট-১ (ফকিরহাট-মোল্লাহাট-চিতলমারী) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী মো. শেখ মাছুদ রানা।
বাগেরহাট-২ (সদর-কচুয়া) : নানা অভিযোগে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী এমএ সালাম।
বাগেরহাট-৩ (রামপাল ও মোংলা) : বেলা ১১টার দিকে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা মোহাম্মদ আবদুল ওয়াদুদ শেখ।
বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ ও শরণখোলা) : বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা অধ্যাপক মো. আলীম।
যশোর-১ (শার্শা) : দুপুরে প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে পুনঃভোট দাবি করেন ধানের শীষের প্রার্থী মফিকুল হাসান তৃপ্তি।
যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী আবু সাঈদ মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেনের নির্বাচনী এজেন্ট।
যশোর-৪ (বাঘারপাড়া-অভয়নগর-সদরের একাংশ) : দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী এনপিপি নেতা মুহম্মদ আলী জিন্নাহ ও জাতীয় পার্টির জহুরুল হক জহিরের নির্বাচনী এজেন্ট।
যশোর-৫ (মনিরামপুর) : দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জন করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা কামরুল হাসান বারী ও ধানের শীষের প্রার্থী মুফতি মুহাম্মদ ওয়াক্কাসের নির্বাচনী এজেন্ট।
ঝিনাইদহ-১ (শৈলকুপা) : বেলা পৌনে ৩টায় ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান।
ঝিনাইদহ-৩ (মহেশপুর-কোটচাঁদপুর) : দুপুর আড়াইটার দিকে ধানের শীষের প্রার্থী কারাবন্দি জামায়াত নেতা মাওলানা মতিয়ার রহমানের নির্বাচনী এজেন্ট ভোট বর্জনের তথ্য জানান।
ঝিনাইদহ-৪ (কালীগঞ্জ-সদরের একাংশ) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী সাইফুল ইসলাম ফিরোজ।
পঞ্চগড়-১ (তেঁতুলিয়া-সদর-আটোয়ারী) : দুপুরে পুনঃভোটের দাবি জানান ধানের শীষের প্রার্থী ব্যারিস্টার নওশাদ জমির।
দিনাজপুর-৬ (হাকিমপুর-বিরামপুর-নবাবগঞ্জ-ঘোড়াঘাট) : দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জেলা জামায়াতের আমির আনোয়ারুল ইসলাম।
নীলফামারী-২ (সদর) : দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াত নেতা মনিরুজ্জামান মন্টু।
নীলফামারী-৩ (জলঢাকা) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী জামায়াতের কেন্দ্রীয় শূরা কমিটির সদস্য আজিজুল ইসলাম।
গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী মাজেদুর রহমান।
গাইবান্ধা-২ (সদর) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী আবদুর রশীদ সরকার।
গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী কাজী মশিউর রহমান।
গাইবান্ধা-৫ (ফুলছড়ি-সাঘাটা) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী এএইচএম গোলাম শহীদ রঞ্জু।
হবিগঞ্জ-১ (বাহুবল-নবীগঞ্জ) : বেলা সাড়ে ১১টার পর ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী গণফোরাম নেতা ড. রেজা কিবরিয়া।
হবিগঞ্জ-২ (আজমিরীগঞ্জ-বানিয়াচং) : বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে পুনর্নির্বাচন দাবি করেন ধানের শীষের প্রার্থী খেলাফত মজলিস নেতা মাওলানা আবদুল বাসিত আজাদ। দুপুর ১২টায় ভোট বর্জন করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আফসার আহমদ রূপক।
হবিগঞ্জ-৩ (সদর-লাখাই) : ধানের শীষের প্রার্থী জিকে গউসের অভিযোগ, ভোট নয়, রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস হয়েছে।
হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) : দুপুরে ভোট বর্জন করেন ধানের শীষের প্রার্থী ড. আহমদ আবদুল কাদের।