দুর্বল দল নিয়ে শক্ত দলের মোকাবিলা হয় না |114392|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০
দুর্বল দল নিয়ে শক্ত দলের মোকাবিলা হয় না
এমাজউদ্দীন
নিজস্ব প্রতিবেদক

দুর্বল দল নিয়ে শক্ত দলের মোকাবিলা হয় না

দুর্বল রাজনৈতিক দল নিয়ে শক্তিশালী রাজনৈতিক দলকে মোকাবিলা করা যায় না। বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টকে আরো শক্তিশালী করার পাশাপাশি বিএনপিকে জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হবে। সরকার গায়ের জোরেই নির্বাচনটাকে দখল করেছে। প্রশাসনের কর্মকর্তা, পুলিশ মেধার পরিবর্তে আনুগত্যের ভিত্তিতে নিয়োগ পাওয়ায় সরকারের যখন যা প্রয়োজন হয়েছে তারা তাই করেছে। সরকার, রাষ্ট্র ও দলের মধ্যে কোনো তফাৎ থাকেনি। বর্তমান সরকার গত ১০ বছরে প্রশাসনকে এমনভাবে সাজিয়েছে যে, নির্বাচনে সামরিক বাহিনী ছাড়া সব বাহিনীই তাদের পক্ষে কাজ করেছে।

আসলে শক্তির মোকাবিলা করতে গেলে শক্তি দিয়েই তা করতে হয়। দুর্বল রাজনৈতিক দল নিয়ে শক্ত রাজনৈতিক দলের মোকাবিলা করা যায় না। এই নির্বাচনে এটিই প্রমাণিত হলো। এই নির্বাচনে এই বার্তাই পেলাম। আর একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে  হবে। তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব থাকলেও সম্পর্ক থাকতে পারবে না। বিএনপি বা ঐক্যফ্রন্টকে আরো শক্তিশালী করতে হবে। মাঠ পর্যায়ে কর্মীদের সংগঠিত করতে হবে। যুবফ্রন্ট, শ্রমিক ফ্রন্ট এসব সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করে কর্মীদের উজ্জীবিত করতে হবে।

নতুন সরকারের কাছে অনেক প্রত্যাশা। গণতন্ত্রের ভিতটা যেন নষ্ট না হয়। গণতন্ত্রে রাজনৈতিক দলের সঙ্গে জোর-জবরদস্তি চলে না। গণতন্ত্র চলে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধের ওপর। গত ১০ বছরে বিএনপির প্রতি সরকারের সম্পর্ক শত্রুভাবসম্পন্ন ছিল। কিন্তু এখন এটি যেন না হয়। কেননা গণতান্ত্রিক চিন্তা-চেতনাকে যদি সুদৃঢ় করা যায়, তাহলে অন্য দলের প্রতিও সহানুভূতিশীল আচরণ করা যায়।