থার্টি ফার্স্ট নাইটে পর্যটকদের দেখা মেলেনি কক্সবাজারে|114431|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১ জানুয়ারি, ২০১৯ ১১:২৬
থার্টি ফার্স্ট নাইটে পর্যটকদের দেখা মেলেনি কক্সবাজারে
আবদুল আজিজ, কক্সবাজার

থার্টি ফার্স্ট নাইটে পর্যটকদের দেখা মেলেনি কক্সবাজারে

প্রতি বছর পুরনো বছরকে বিদায় ও নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে লাখো পর্যটক ভিড় জমায় পর্যটন নগরী কক্সবাজারে। কিন্তু, এ বছর ঘটেছে এর ব্যতিক্রম। কারণ, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালনের উপর নিষেধাজ্ঞা থাকায় আশানুরূপ পর্যটক আসেনি কক্সবাজারে। তাই, অনেকটা নিরবতা বিরাজ করছে সমুদ্র সৈকতসহ বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে।

তবে পরিস্থিতি ঠিক থাকলে নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহে পর্যটকের আগমন বাড়বে বলে আশা করছেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা।

ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকা থেকে আসা শেলী চৌধুরী (৩৫) বলেন, ‘সন্তানদের স্কুল ছুটির পর নির্বাচনের দুই দিন আগে কক্সবাজারে ঘুরতে এসেছি। উদ্দেশ্য ছিল স্বামী-সন্তানদের নিয়ে সকলে মিলে থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন করব। কিন্তু, কক্সবাজারে কোথাও কোনো থার্টি ফার্স্ট নাইটের অনুষ্ঠান হয়নি। একারণে আমি খুব হতাশ।’

চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকা থেকে এসেছেন পর্যটক দম্পতি রাহেলা পারভিন ও ইরানুল হক। তারা চীনের একজন পর্যটক নিয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে কক্সবাজারে অবস্থান করছেন। বিশেষ করে থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন হবে এজন্য এত দিন থেকে গেছেন। কিন্তু, থার্টি ফার্স্ট নাইট অনুষ্ঠান হয়নি।

রাহেলা পারভিনের মতে, নতুন বছরে নতুন সরকারের কাছে অনেক বেশি প্রত্যাশা। যাতে দেশটি আগামীতে সুন্দর ও সুখময় হয়। দেশ যেন অনেক এগিয়ে যায়।

এদিকে, কক্সবাজারে পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা বলছেন, নির্বাচনে সহিংসতার আশঙ্কা, যানবাহন বন্ধ ও থার্টি ফার্স্ট নাইট উদযাপন না থাকায় পর্যটক শূন্যতা বিরাজ করছে কক্সবাজারে। তবে রাজনৈতিক পরিস্থিতি ঠিক থাকলে নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহে প্রচুর পর্যটকদের আগমন ঘটবে বলে আশাবাদী তারা।

কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ হোটেল রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুখিন খান বলেন, ‘বিগত সময়গুলোতে আমাদের কক্সবাজারে যেভাবে পর্যটক আসত, এবার কিন্তু যেভাবে আসেনি। কারণ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সহিংসতার আশঙ্কায় কক্সবাজারে এখন পর্যটক নেই বললেই চলে। তবে আশা করছি নির্বাচন যেহেতু শেষ হয়ে গেছে সেহেতু চলতি সপ্তাহে বিশাল পর্যকদের সমাগম ঘটবে।’

কক্সবাজার ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এমএ হাসিব বাদল বলেন, ‘এবারে থার্টি ফার্স্ট নাইটে কক্সবাজারে পর্যটক না থাকার কারণ একটাই জাতীয় সংসদের নির্বাচন।’

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘সদ্য অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদের নির্বাচন ও থার্টি ফার্স্ট নাইটের অনুষ্ঠান না থাকায় পর্যটক নেই বললেই চলে সৈকতে। তবে স্থানীয় পর্যটকদের কিছুটা আগমন ঘটেছে। এরপরও পর্যটকদের নিরাপত্তায় ট্যুরিস্ট পুলিশ যাবতীয় প্রস্তুতি হাতে নেওয়া হয়েছে।’