সাংসদদের শপথ কাল জাপার সিদ্ধান্ত আজ, ঐক্যফ্রন্ট এখনো না|114569|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০
সাংসদদের শপথ কাল জাপার সিদ্ধান্ত আজ, ঐক্যফ্রন্ট এখনো না
বিশেষ প্রতিনিধি

সাংসদদের শপথ কাল জাপার সিদ্ধান্ত আজ, ঐক্যফ্রন্ট এখনো না

কাল একাদশ জাতীয় সংসদের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ নেবেন। এদিন সকাল ১০টায় জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে দশম জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী শপথবাক্য পাঠ করাবেন।

সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, গতকাল দুপুর থেকেই নতুন সংসদ সদস্যদের শপথের আয়োজন নিয়ে ব্যস্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী গতকাল নিজ নির্বাচনী এলাকা থেকে এসে পৌঁছেছেন।

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের বড় শরিক দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্যরা শপথ নেবেন কি না তার সিদ্ধান্ত নেবেন আজকের প্রেসিডিয়াম বৈঠক থেকে। তাছাড়া ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে শপথ না নেওয়ার পক্ষে অবস্থা নিয়েছে।

জাতীয় পার্টির মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা বলেছেন, তারা আজ প্রেসিডিয়াম সভায় সংসদে জাপার ভূমিকা ও করণীয় নির্ধারণ করবেন।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) বলছে, গেজেট জারি করে আজকের মধ্যেই তা সংসদ সচিবালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

তবে, আগামীকাল বৃহস্পতিবার শপথ নিলেও ২৮ জানুয়ারি বর্তমান সংসদের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নবনির্বাচিতরা সংসদ সদস্য হিসেবে কার্যভার গ্রহণ করবেন।শপথ অনুষ্ঠান উপলক্ষে সংসদ সচিবালয়ের সচিব বলেন, নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যদের শপথের  জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি গুছিয়ে এনেছি। স্পিকারের পরামর্শে পুরো আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করা হবে। নির্বাচন কমিশন থেকে এরমধ্যে জানিয়েছে তারা আজ গেজেট পৌঁছে দেবে।  গতকাল তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক জানিয়েছেন, একাদশ জাতীয় নির্বাচনের বিজয়ীদের শপথ ৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের পর ১২ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। ২৯ জানুয়ারি সংসদের প্রথম অধিবেশন বসে। এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও বিপুলসংখ্যক আসন নিয়ে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। যদিও আগামী ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত বর্তমান সংসদের মেয়াদ রয়েছে। সরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণার ৩০ দিনের মধ্যে সংসদ অধিবেশন ডাকার বিষয়ে সংবিধানে বাধ্যবাধকতা আছে।

গত ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট ২৮৮টি আসনে জয়লাভ করে। আওয়ামী লীগ একাই জিতেছে ২৫৭টি আসনে। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ায় দলটি টানা তৃতীয়বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে। এই নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোট পেয়েছে ৭টি আসন। বিএনপি এককভাবে  পেয়েছে ৫টি। নির্বাচনে এককভাবে ২২টি আসন পেয়ে দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হয়েছে জাতীয় পার্টি। একাদশ সংসদে তারাই বিরোধী দল হতে যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের নেতারা বলছেন, নির্বাচিতরা শপথ নেওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে নতুন মন্ত্রিপরিষদ গঠন হবে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন।