ক্যারিয়ারের জন্য এখন আফ্রিদিকে দুষছেন বাট|114641|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৭:১৭
ক্যারিয়ারের জন্য এখন আফ্রিদিকে দুষছেন বাট
অনলাইন ডেস্ক

ক্যারিয়ারের জন্য এখন আফ্রিদিকে দুষছেন বাট

সালমান বাট। ছবি: এএফপি

পাকিস্তানের সাবেক ওপেনার সালমান দাবি করেছেন, শহীদ আফ্রিদি তার জাতীয় দলে ফেরার রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছিলেন।

পাকিস্তান ক্রিকেট দলের এক সময়ের বড় ভরসা ছিলেন সালমান বাট। টেস্টে নিজ দেশকে নেতৃত্বও দিয়েছেন। কিন্তু ২০১০ সালে লর্ডসে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হন।

২০১৫ সালে নিষেধাজ্ঞা শেষ হলেও সালমান বাটের আর ফেরা হয়নি জাতীয় দলে। ৩৪ বছর বয়সী বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের দাবি, ভারতে অনুষ্ঠিত ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে জায়গা করে নেওয়ার খুব কাছে চলে গিয়েছিলেন। ‍কিন্তু তখনকার অধিনায়ক আফ্রিদি সে সময় নির্বাচকদের প্রভাবিত করেন।

মঙ্গলবার রাতে একটি টেলিভিশন অনুষ্ঠানে বাট বলেন, ‘‘প্রধান কোচ ওয়াকার ইউনিসের মাধ্যমে আমি ন্যাশনাল ক্রিকেট একাডেমিতে ডাক পাই। ব্যাটিং কোচ গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার আমাকে দেখেন। তারা আমাকে নেটে পাঠান এবং আমার ফিটনেস পরীক্ষা করেন।’’

পাকিস্তানের হয়ে ৩৩ টেস্ট, ৭৮ ওয়ানডে ও ২৪টি টি-টোয়েন্টি খেলা বাট যোগ করে বলেন, ‘‘ওয়াকার ভাই আমাকে বলেন, যদি পাকিস্তান দলে খেলতে মানসিকভাবে তৈরি থাকি আমি যেন দ্রুত হ্যাঁ বলি।’’

বাটের দাবি, পাকিস্তান দলে তার ফেরার প্রক্রিয়ার সবকিছুই ঠিকঠাক ছিল। কিন্তু বাঁধ সাধেন অধিনায়ক আফ্রিদি, ‘‘আমি জানি না কে তাকে (আফ্রিদিকে) এটা করতে প্রভাবিত করেছিল। কিন্তু আমি তার কাছে যাইনি। অথবা এ নিয়ে কথা বলিনি। আমার মনে হয়নি এটা ঠিক ছিল। কিন্তু আমি জানি যে ওয়াকার ও ফ্লাওয়ার আমাকে বলেছিল আমি বিশ্বকাপে খেলছি এবং এরপর আফ্রিদি বাঁধ সাধে।’’

এরপর অবশ্য বাট ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফর্ম করেছেন। যার পুরস্কার হিসেবে ২০১৭ সালের শুরুতে জাতীয় দলে নির্বাচিত হওয়ার খুব কাছেও চলে যান।

কিন্তু তারপরও কেন ফেরা হয়নি সেই উত্তর অজানা এই ওপেনারের, ‘‘আমি জানি না জাতীয় দলে ফিরতে আমাকে আর কি করতে হবে। আমি আমার পুনর্বাসনের সময় সম্পূর্ণ করেছি এবং রানও করেছি।’’

‘‘কিন্তু আমি মনে করি এটা অন্যায় যদি কেউ আমাদের পরিস্কার না করে বা বলে, এই কাজগুলো না করলে পাকিস্তান দলে পুরনায় ফেরা যাবে না।’’

২০১০ সালে লর্ডস টেস্টে স্পট ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে নিষিদ্ধ হন সালমান বাট সহ মোহাম্মদ আমির ও মোহাম্মদ আসিফ। শাস্তি কাটিয়ে আমির আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরলেও বাট এবং আসিফ পারেননি ফিরতে।