নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে: আসক|114841|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৮:০৭
নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে: আসক
নিজস্ব প্রতিবেদক

নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে: আসক

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। ফাইল ফটো

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বিগত নির্বাচনগুলো থেকে ব্যতিক্রম হলেও সুষ্ঠু হয়েছে বলে জানিয়েছে আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন। সদ্য অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আসক-এর পক্ষ থেকে সারা বাংলাদেশে এক হাজার ২৪৫টি কেন্দ্রে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করা হয়।

সংস্থার পর্যবেক্ষণে উঠে আসে, গড়ে এই নির্বাচনে ৮০ শতাংশ ভোট পড়েছে, যা গত নির্বাচনগুলোর ভোটগ্রহণের গড় থেকে বেশি।

গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে পর্যবেক্ষণের এসব তথ্য জানিয়েছেন আসক চেয়ারম্যান মো. এনামুল হক। 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, আসক ফাউন্ডেশনের সারা বাংলাদেশ ও কেন্দ্রীয়ভাবে ৯৪৩ জন পর্যবেক্ষক ৫ জনের দলে বিভক্ত হয়ে এই জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করেছে। বিগত জাতীয় নির্বাচনগুলো থেকে এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনেকটাই ব্যতিক্রম ছিল। সারা বাংলাদেশে নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে।
 
তিনি জানান, এই নির্বাচন দেশ-বিদেশে গ্রহণযোগ্য করার জন্য বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে স্থানীয় ও বিদেশি পর্যবেক্ষকদের শান্তিপূর্ণভাবে মাঠপর্যায়ে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ করার উদ্দেশ্যে প্রশাসনকে নির্দেশনা দিয়েছে। সব কেন্দ্রে অবাধ ও সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালিত হয়েছে এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ছিল খুবই তৎপর। 
তিনি বলেন, ‘আমাদের সংস্থার পর্যবেক্ষকদের তথ্যমতে, গড়ে এই নির্বাচনে ৮০ শতাংশ ভোট পড়েছে, যা গত নির্বাচনে ভোটগ্রহণের গড় থেকে বেশি।

এবার নতুন ভোটারদের ভোট প্রদানের উৎসাহ ছিল ব্যাপক এমন তথ্য জানিয়ে এনামুল হক আরো বলেন, ‘নারী ও প্রতিবন্ধী ভোটাররাও উৎসবমুখর পরিবেশে এই নির্বাচনে ভোট দিতে পেরেছে। তবে সংস্থার পর্যবেক্ষকদের পক্ষ থেকে কোনও বিশৃঙ্খলা তথ্য পাওয়া যায়নি।

দেশব্যাপী পর্যবেক্ষকদের মতে ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সব নিবন্ধিত দলের অংশগ্রহণে নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে ‌। সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন দেশ-বিদেশে বহুল প্রশংসিত হয়েছে। কিন্তু ভোট উৎসবের মধ্যে কয়েকজন ব্যক্তিকে জীবন দিতে হয়েছে, যার জন্য আমরা আন্তরিকভাবে মর্মাহত। এসব ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত বিচারের আওতায় এনে কঠিন শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক সামসুল হক নিউটন, উপদেষ্টা ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এম এম কামরুল হাসান খান আসলাম, উপদেষ্টা মো. আব্দুস সালাম খান ও মো. তৌহিদুল ইসলামসহ পরিচালক মো. মনির হোসেন প্রমুখ।