বনানীতে শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ|115461|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৬ জানুয়ারি, ২০১৯ ২০:০৪
বনানীতে শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ
নিজস্ব প্রতিবেদক

বনানীতে শায়িত হলেন সৈয়দ আশরাফ

সংসদ ভবন চত্ত্বরে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের জানাজায় মানুষের ঢল। ছবি: সাহাদাত পারভেজ

সাধারণ মানুষ, নেতাকর্মীদের শ্রদ্ধা আর হৃদয় নিংড়ানো ভালোবাসায় রাজধানীর বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম।

রোববার বিকেল ৪টা ৫৫ মিনিটে ‘রাজনীতির উজ্জ্বল নক্ষত্র’ বলে পরিচিত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। শেষ বিদায়ের আগে একাত্তরের রণাঙ্গনে মুজিব বাহিনীর এই যোদ্ধার প্রতি ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানানো হয় রাষ্ট্রীয় সম্মান।

সংসদ ভবনের জানাজায় জাতীয় ও দলীয় পতাকায় মোড়া কফিনে ফুল দিয়ে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে সংসদ প্লাজায়, কিশোরগঞ্জ ও ময়মনসিংহে তিনটি নামাজের জানাজা শেষে বিকেল ৪টা ৩৫ মিনিটে তার মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স বনানী কবরস্থানে এসে পৌঁছায়। দুপুর থেকেই নেতাকর্মীরা তাদের প্রিয় নেতাকে চিরবিদায় জানাতে উপস্থিত হতে থাকেন বনানী কবরস্থানে। কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা ভালোবাসা জানাচ্ছেন অনেকেই।

সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় জানাজার পর হেলিকপ্টারে করে সৈয়দ আশরাফের মরদেহ নেওয়া হয় তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জে। সেখানে পুরাতন স্টেডিয়াম মাঠে বেলা ১২টায় তার জানাজা হয়। এরপর দুপুর ২টায় ময়মনসিংহের আঞ্জুমান ঈদগাহ মাঠে আরেক দফা জানাজা হয়। তৃতীয় জানাজা শেষে ঢাকায় এনে আসরের পর বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ব্যাংককের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ছয় মাস ধরে ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তিনি। গত শনিবার তার মরদেহ দেশে আনা হয়।