আশুলিয়ায় পাঁচ শতাধিক কারখানা বন্ধ ঘোষণা|116746|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৭:০০
আশুলিয়ায় পাঁচ শতাধিক কারখানা বন্ধ ঘোষণা
ওমর ফারুক, সাভার

আশুলিয়ায় পাঁচ শতাধিক কারখানা বন্ধ ঘোষণা

রোববারও সাভারে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করে। ছবি: দেশ রূপান্তর

শ্রমিক বিক্ষোভের পর আশুলিয়ায় পাঁচ শতাধিক কারখানা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সরকার ঘোষিত মজুরি কাঠামোয় বৈষম্যের অভিযোগ তুলে টানা সপ্তম দিনের মতো রোববারও আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় বিক্ষোভ করেছে তৈরি পোশাক শ্রমিকরা।

এ সময় বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা বাইপাইল-আব্দুল্লাহপুর সড়ক অবরোধসহ বিভিন্ন কারখানায় ভাঙচুর চালায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ শ্রমিকদের বাধা দিলে দুই পক্ষে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়াসহ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ২০ শ্রমিক আহত হয়।

এরপর রোববার দুপুরের দিকে জামগড়া, নরসিংহপুর, জিরাব, কাঠগড়াসহ বিভিন্ন এলাকার পাঁচ শতাধিক কারখানা বন্ধ ঘোষণা করে মালিকপক্ষ।

রাজধানীসহ আশপাশের এলাকায় টানা শ্রমিক অসন্তোষের ঘটনায় অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে তৈরি বলে দাবি করেছেন পোশাক কারখানার মালিকরা।

রোববার জরুরি সংবাদ সম্মেলন করে এমনটা জানায় তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)। বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান শ্রমিকদের সোমবারের মধ্যে কর্মস্থলে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান। অন্যথায় শ্রমিকদের বেতন দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেন।

এ সময় সিদ্দিকুর রহমান বলেন, পোশাক শিল্পকে ধ্বংস করার জন্য একটি মহল শ্রমিকদের সরলতার সুযোগ নিয়ে কারখানায় ভাঙচুর-হামলা করেছে। এ ঘটনায় তিনি সরকারের কাছে জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে জড়িতদের আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান।

আশুলিয়ার বেরন এলাকার শারমিন গ্রুপের এম ডিজাইন কারখানার এইচআর অ্যাডমিন ম্যানেজার মো. আনোয়ার হোসেন দেশ রূপান্তরকে বলেন, আমাদের কারখানায় কোনো শ্রমিক বিক্ষোভ নাই। সকালে কারখানার শ্রমিকরা শান্তভাবে ভেতরে প্রবেশ করে কাজে যোগ দেয়।

তিনি বলেন, ‘কিছুক্ষণ পর বহিরাগত একটি গ্রুপ এসে আমাদের কারখানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে ভাঙচুর চালায়। এ সময় আমরা বাধ্য হয়ে কারখানাটি ছুটি দিলে শ্রমিকরা বের হয়ে চলে যায়।’

তৈরি পোশাক কারখানার এই কর্মকর্তা অভিযোগ করে বলেন, ‘আমাদের কারখানার শ্রমিকরা স্বাভাবিকভাবে কাজ করে আসছে। কিন্তু ভুঁইফোড় কিছু শ্রমিক সংগঠনের নামে একটি পক্ষ দেশের পোশাকশিল্প খাতকে অস্থিতিশীল করতে পরিকল্পিতভাবে এ ধরনের শ্রমিক অসন্তোষ সৃষ্টি করছে।’

ঢাকা জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইদুর রহমান বলেন, টানা শ্রমিক অসন্তোষের ঘটনায় রবিবার শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় পাঁচ শতাধিক কারখানা বন্ধ ঘোষণা করেছে মালিকপক্ষ। এ ছাড়া অপ্রীতিকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ও বিজিবির টহলের পাশাপাশি প্রতি কারখানার সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।