ঢাকার বাইরের সরকারি হাসপাতালে ৬২ ভাগ চিকিৎসকই অনুপস্থিত|118271|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২১ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৮:৪৯
ঢাকার বাইরের সরকারি হাসপাতালে ৬২ ভাগ চিকিৎসকই অনুপস্থিত
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকার বাইরের সরকারি হাসপাতালে ৬২ ভাগ চিকিৎসকই অনুপস্থিত

দেশের বিভিন্ন স্থানের সরকারি হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য কেন্দ্রে অভিযান চালিয়ে ঢাকার বাইরে চিকিৎসকদের ৬২ শতাংশ অনুপস্থিতি পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সোমবার ঢাকাসহ মোট ৮ জেলায় দুদকের ১১টি বিশেষ দল সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করে।

দুদকের উপপরিচালক প্রণব কুমার ভট্টাচার্য দেশ রূপান্তরকে অভিযানের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘যারা উপস্থিত ছিলেন না তাদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। অভিযান চালানোর আগে আমরা সতর্ক থেকেছি যেন গোপনে আমাদের অভিযানের খবর না পেয়ে যায়।’

দুদকের ১০৬ নম্বরে আসা অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঢাকা, রংপুর, রাজশাহী, দিনাজপুর, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, কুষ্টিয়া, পাবনার মোট ১১টি সরকারি হাসপাতালে একযোগে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

যেসব হাসপাতালে অভিযান চালানো হয় সেগুলো হলো- ঢাকার কর্মচারী কল্যাণ হাসপাতাল, মা ও শিশু সদন ও মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা, টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার, রংপুরের পীরগাছা, রাজশাহীর গোদাগাড়ী, কুষ্টিয়ার কুমারখালি ও পাবনার আটঘরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পাবনা সদর জেনারেল হাসপাতাল ও দিনাজপুর সদর হাসপাতাল।

দুদক মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেছেন, ঢাকার দুই হাসপাতালে মোট চিকিৎসক উপস্থিতির সংখ্যা ১১০ জন হওয়ার কথা থাকলেও উপস্থিত পাওয়া যায় ৯৯ জন চিকিৎসককে।

তিনি জানিয়েছেন, ঢাকার বাইরের হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এ চিত্র আরো ভয়াবহ। সাত জেলার হাসপাতালে ১৩১ চিকিৎসক দায়িত্ব পালনের কথা থাকলেও উপস্থিত ছিলেন ৮১ জন। এ ক্ষেত্রে অনুপস্থিতির হার মোট চিকিৎসকের প্রায় ৬১.৮ শতাংশ।

তিনি জানিয়েছেন, এদিকে রাজধানীর মুগদা জেনারেল হাসপাতালে অভিযানকালে জরুরি বিভাগের এক কর্মচারী (স্ট্রেচার বিয়ারার) দায়িত্বরত অবস্থায় রোগীর স্বজনদের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার সময় দুদকের কাছে হাতেনাতে ধরা পড়েন। দুদকের সুপারিশে তাকে তাৎক্ষণিক বরখাস্ত করা হয়।

অভিযান প্রসঙ্গে এনফোর্সমেন্ট অভিযানের সমন্বয়ক দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘স্বাস্থ্য সেক্টরে এ অবক্ষয় অত্যন্ত দুঃখজনক। মানবসেবার চেতনা না থাকলে চিকিৎসা সেবা পরিত্যাগ করা উচিত। তবে দায়িত্বে অবহেলার বিষয়ে দুদক কঠোর অবস্থান নেবে। সারা দেশের স্বাস্থ্যখাত দুদকের নজরদারিতে থাকবে।’