এখনই যাচ্ছে না শীত|118932|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২০
এখনই যাচ্ছে না শীত
নিজস্ব প্রতিবেদক

এখনই যাচ্ছে না শীত

মাঘের ১১ দিন পার হতে যাচ্ছে। এমন ভর মাঘেও শীতের দেখা নেই দেশের অধিকাংশ অঞ্চলেই। এ মুহুর্তে শুধু মৌলভীবাজার অঞ্চলের উপর দিয়ে মৃদু মাত্রার শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। তবে শুক্র ও শনিবার দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সামাণ্য বৃষ্টি ঝরার পর কমতে পারে তাপমাত্রা। বৃহস্পতিবারও উত্তরাঞ্চলের কোথাও কোথাও সামান্য বৃষ্টি ঝরার খবর শোনা গেছে।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। অন্যদিকে এদিন সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে মৌলোভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ৯.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, দেশের অধিকাংশ অঞ্চলে তাপমাত্রা বেড়ে গেলেও এখনই যাচ্ছে না শীত। এ মাসের শেষদিকে তাপমাত্রা আরো কমতে পারে। বৃষ্টিপাতের পর কমবে তাপমাত্রা। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতেই পুরোদমে বিদায়ের যাত্রা করবে শীত।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মো. আবুল কালাম মল্লিক শুক্র ও শনিবার রংপুরসহ বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার কথা জানিয়ে দেশ রুপান্তরকে বলেন, ‘বৃষ্টি না হলেও এ দুদিন আকাশ মেঘলা থাকবে। এরপর থেকে তাপমাত্রা কমতে থাকবে । স্কেল অনুযায়ী এই হ্রাস পাওয়া সাধারণত ৩ দিন অব্যাহত থাকে।’

ঢাকায় তাপমাত্রা বেশি থাকার কারণ হিসেবে তিনি বিভিন্ন যানবাহন, কল কারখানা, গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি, রেফ্রিজারেটর, এয়ার কন্ডিশনের নির্গত তাপের আধিক্যের কারণকে দায়ী করেন। তবে ২৭-২৮ তারিখের পরে ঢাকাতেও তাপমাত্রা ১০-১১ ডিগ্রিতে নামতে পারে বলে জানান তিনি।

তবে এখনই না গেলেও শীত আর বেশিদিন নেই বলে জানিয়েছেন আবুল কালাম মল্লিক। তিনি বলেন, ‘সাধারণত ফ্রেব্রুয়ারির মাঝামাঝিতে অর্থাৎ ১৫ তারিখের পর থেকেই তাপমাত্রা ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। এবং মার্চ মাসে পুরোপুরি গরম চলে আসে।’

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘন্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে- রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের দু-এক জায়গায় হালকা বা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারী ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি পেতে পারে এবং দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।