দুর্নীতিতে ৬ ধাপ অবনতি বাংলাদেশের, সঙ্গী উগান্ডা|119870|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৯ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৩:৪৯
দুর্নীতিতে ৬ ধাপ অবনতি বাংলাদেশের, সঙ্গী উগান্ডা
নিজস্ব প্রতিবেদক

দুর্নীতিতে ৬ ধাপ অবনতি বাংলাদেশের, সঙ্গী উগান্ডা

বার্লিনভিত্তিক আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী সংস্থা ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআই) কর্তৃক প্রকাশিত দুর্নীতির ধারণা সূচকে গত বছরের চেয়ে ছয় ধাপ অবনতি হয়েছে বাংলাদেশের। সমপরিমাণ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গী হয়েছে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ও উগান্ডা।

ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে সংস্থাটির বাংলাদেশ অফিস (টিআইবি) মঙ্গলবার সকালে নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য তুলে ধরে।

এতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান দুর্নীতির সূচকে বাংলাদেশের অবস্থানকে ‘বিব্রতকর অবনতি’ বলে বর্ণনা করেন।

দুর্নীতির ধারণা সূচক-২০১৮ অনুযায়ী সূচকের ০-১০০ এর স্কেলে বাংলাদেশের স্কোর ২৬ যা ২০১৭ এর তুলনায় ২ পয়েন্ট কম। তালিকার নিম্নক্রম অনুযায়ী ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৩তম যা ২০১৭ এর তুলনায় ৪ ধাপ নিম্নে। আর ঊর্ধ্বক্রম অনুযায়ী ১৪৯তম যা ২০১৭ এর তুলনায় ৬ ধাপ অবনতি।

এবছর একই স্কোর পেয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে তালিকার নিম্নক্রম অনুযায়ী ১৩তম অবস্থানে সম্মিলিতভাবে আরও রয়েছে সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ও উগান্ডা।

টিআই ১৮০টি দেশের ওপর এই জরিপ চালিয়েছে। জরিপে ০ থেকে ১০০ নম্বরের স্কেলে দেশগুলোকে নম্বর দেওয়া হয়েছে। সবচেয়ে কম নম্বর (১০ স্কোর) পেয়ে সবচেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হয়েছে সোমালিয়া। তার পরেই রয়েছে (১৩ স্কোর) সিরিয়া ও দক্ষিণ সুদান। তৃতীয় অবস্থানে (১৪ স্কোর) রয়েছে ইয়েমেন ও উত্তর কোরিয়া।

সবচেয়ে বেশি ৮৮ স্কোর পেয়ে সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ বিবেচিত হয়েছে ডেনমার্ক। কম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশ হিসেবে এর পরেই রয়েছে (৮৭ স্কোর) নিউজিল্যান্ড। তৃতীয় অবস্থানে (৮৫ স্কোর) রয়েছে ফিনল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, সুইডেন ও সুইজারল্যান্ড।

এ সূচক যেসব বিষয়ের ওপর ভিত্তি করে পরিচালিত হয় সেগুলোর কয়েকটি হচ্ছে - ঘুষ লেনদেন, সরকারি ব্যবস্থাকে ব্যক্তিগতভাবে ব্যবহার করা, সরকারি সম্পদ ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার ও স্বজনপ্রীতি। সূচকটি তৈরি করা হয় তিনটি আন্তর্জাতিক জরিপের ওপর ভিত্তি করে।

বার্লিন-ভিত্তিক ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল ১৯৯৫ সাল থেকে দুর্নীতির ধারণা সূচক প্রকাশ করছে। এ সূচকে বাংলাদেশকে প্রথমবারের মতো অন্তর্ভুক্ত করা হয় ২০০১ সালে।