আস্থা হারিয়েছে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট: তথ্যমন্ত্রী|120896|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৯:০১
আস্থা হারিয়েছে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট: তথ্যমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

আস্থা হারিয়েছে বিএনপি-ঐক্যফ্রন্ট: তথ্যমন্ত্রী

জাতীয় প্রেসক্লাবে সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের প্রয়াণ দিবসের এক আলোচনায় বক্তব্য রাখেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ। ছবি: ফোকাস বাংলা।

বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট নিজেদের প্রতি আস্থা হারিয়েছে বলে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, তারা জনগণ থেকে অনেক দূরে সরে গেছে। নির্বাচনের আগে তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন থাকায় নির্বাচনে তাদের ভরাডুবি হয়েছে।

রাজধানীতে রবিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের প্রয়াণ দিবসের এক আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি এবং ঐক্যফ্রন্টকে আগে নিজের মধ্যে আত্মবিশ্বাস-আস্থা ফিরিয়ে আনতে হবে। তাদের নির্বাচন বর্জন আর প্রতিহতের পথ থেকে সরে আসতে হবে।

তিনি বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টকে সংসদে ফিরে এসে জনগণের অধিকার নিয়ে কথা বলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, তাদের অধিকার রক্ষার চেষ্টা করুণ। তা না হলে আপনারা জনগণের কাছে আর ফিরে যেতে পারবেন না।

প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রের আমন্ত্রণ রক্ষা না করায় বিরোধী নেতাদের ইঙ্গিত করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এখনকার বিরোধী নেতাদের কোন অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ করলেও সৌজন্যবোধ দেখান না। তাদের দাওয়াত করলেও নেতিবাচক মনোভাবের জন্য তারা সেটা গ্রহণ করেন না। তিনি তাদের ওই নেতিবাচক দিক থেকে সরে আসার আহ্বান জানান।

সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে কিংবদন্তি রাজনৈতিক উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, তিনি তার মেধা এবং প্রজ্ঞা দিয়ে সংসদকে সর্বদা প্রাণবন্ত করে রাখতেন। তিনি যে মাপের সাংসদ ছিলেন সে রকম আর দেখা যায় না।

তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, তিনি এমন একজন কর্তব্য পরায়ণ ব্যক্তি ছিলেন যা বলার ভাষার বাইরে। তিনি ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েও সংসদ চলাকালে কোন দিন সংসদে অনুপস্থিত ছিলেন কিনা তা কেউ বলতে পারবেন না। মৃত্যুর দুই দিন আগেও তিনি সংসদে এসেছিলেন।

আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামানের সভাপতিত্ব আরও উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, আওয়ামী নেতা বলরাম পোদ্দার, আওয়ামী লীগ নেতা ডা. দিলীপ কুমার রায়, কামাল চৌধুরী, অনুরাধা বিশ্বাস, কণ্ঠশিল্পী রফিকুল আলম, আক্তার হোসেন, মিজানুর রহমান বিটু প্রমুখ।