গণতান্ত্রিকভাবে 'সীমিত স্বাধীন' বাংলাদেশ|121538|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২২:১৮
ফ্রিডম হাউস প্রতিবেদন
গণতান্ত্রিকভাবে 'সীমিত স্বাধীন' বাংলাদেশ
নিজস্ব প্রতিবেদক

গণতান্ত্রিকভাবে 'সীমিত স্বাধীন' বাংলাদেশ

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক পর্যবেক্ষণ ও গবেষণা সংস্থা ফ্রিডম হাউসের প্রতিবেদনে বাংলাদেশকে গণতান্ত্রিকভাবে 'পার্টলি ফ্রি' বা 'সীমিত স্বাধীন' দেশ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। গত কয়েক বছর ধরে সংস্থাটি বাংলাদেশকে এই তালিকায় রেখেছে।

১৯৫ দেশের পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে ‘ফ্রিডম অব দি ওয়ার্ল্ড’ শীর্ষক এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ফ্রিডম হাউস।

তাদের মতে, বিশ্বের রাজনীতিতে ক্ষমতার ভারসাম্যে নতুন মেরুকরণের ফলে আগের তুলনায় বেশি দেশ কর্তৃত্ববাদী শাসনের পথে যাচ্ছে, ফলে গণতন্ত্র পিছু হটতে বাধ্য হচ্ছে।

২০০৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত বিশ্বে রাজনৈতিক ও নাগরিক অধিকার কমেছে বলে প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। 

সংস্থাটির হিসাবে, ২০১৮ সালে ৫০ দেশে গণতান্ত্রিক স্বাধীনতা বেড়েছে, তবে কমেছে ৬৮ দেশে।

সংস্থাটির হিসাবে কোনো দেশের রেটিং ১ থেকে ২.৫ এর মধ্যে হলে তাকে ‘ফ্রি’, ৩ থেকে ৫ হলে ‘পার্টলি ফ্রি’ এবং ৫.৫ থেকে ৭ এর মধ্যে থাকলে ‘নট ফ্রি’ ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে।

এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ রয়েছে 'পার্টলি ফ্রি' দেশের তালিকায়। ‘ফ্রিডম অব দি ওয়ার্ল্ড’ প্রতিবেদনে সব মিলিয়ে বাংলাদেশের স্কোর এক শ'র মধ্যে ৪১। রাজনৈতিক অধিকার ও নাগরিক স্বাধীনতা মানদণ্ডে বাংলাদেশের রেটিং হয়েছে ৭ এর মধ্যে ৫। ফ্রিডম রেটিংয়েও বাংলাদেশ ৫ পেয়েছে।

যে হিসাবে বাংলাদেশকে গণতান্ত্রিক স্বাধীনতার দিক দিয়ে ‘সীমিত স্বাধীন’ দেশ বলছে ফ্রিডম হাউস।

গণতান্ত্রিকভাবে একেবারে স্বাধীন নয় এমন দেশের তালিকায় রয়েছে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, চীন, ইরান, তুরস্ক।

যুক্তরাষ্ট্র ‘ফ্রি’ দেশের তালিকায় থাকলেও গণমাধ্যমের বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আক্রমণাত্মক ভূমিকা এবং অভিবাসীদের ক্ষেত্রে তার ‘অন্যায্য’ নীতির কারণে সেখানে গণতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বলে মনে করছে ফ্রিডম হাউস।