সৌদি আরব যাওয়া বাংলাদেশি নারীর শরীরে আয়রনের ছেঁকা|121735|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১৮:১১
সৌদি আরব যাওয়া বাংলাদেশি নারীর শরীরে আয়রনের ছেঁকা
নিজস্ব প্রতিবেদক

সৌদি আরব যাওয়া বাংলাদেশি নারীর শরীরে আয়রনের ছেঁকা

ভাগ্য পরিবর্তনের আশায় মাসখানেক আগে সৌদি আরব যান কুমিল্লার নার্গিস আক্তার (২৫, ছদ্মনাম)। মক্কায় এক সৌদির বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করছিলেন তিনি। কিন্তু বর্তমানে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে দেশটির এক হাসপাতালে ভর্তি। তার শরীরে আয়রনের ছেঁকা।

 গত ১০ দিন ধরে তার চিকিৱসা চলছে মক্কার আল নূর হাসপাতালে।

নার্গিস যে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সেখানে কর্মরত বাংলাদেশি নার্স তাসলিমা খানের বরাত দিয়ে জেদ্দা থেকে প্রবাসী সাংবাদিক সাইফুল রাজীব দেশ রূপান্তরকে জানিয়েছেন, ১০ দিন আগে এক বাংলাদেশি ও সৌদি পুলিশ আহত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

নার্গিস সাইফুল রাজীবকে জানিয়েছেন, বাসার মালিকের নির্যাতন সইতে না পেরে তিন তলা বাসার বাথরুমের পাইপ দিয়ে পালানোর সময় পড়ে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে যান তিনি।

সাইফুল রাজীব আরও জানান, তার হাতে আয়রন মেশিনের ছেঁকার দাগ আছে। কাপড় আয়রন করতে না জানায় ওই বাসার গৃহকর্ত্রী আয়রন দিয়ে ছেঁকা দেন।

নার্গিস আরো জানিয়েছেন, তাকে সবসময় তালা বন্ধ করে রাখা হতো যাতে পালিয়ে যেতে না পারে। আরবি ভাষা না জানা ও সৌদি খাবার খেতে অভ্যস্ত না হওয়ায় তাকে আরও বেশি শাস্তি দেওয়া হতো।

ওই তরুণী বর্তমানে সৌদি পুলিশের নজরদারিতে আছেন বলে জানা গেছে।