logo
আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২০:০৪
বিরক্ত হই, যদিও প্রকাশ করি না: তথ্যমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিরক্ত হই, যদিও প্রকাশ করি না: তথ্যমন্ত্রী

প্রেসক্লাবে প্রগতির জন্য জ্ঞান- প্রজ্ঞা’র আয়োজনে ‘তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে অগ্রগতি, বাধা ও করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ছবি: দেশ রূপান্তর

আশপাশে কেউ ধূমপান করলে বিরক্ত হই, যদিও বিরক্তি প্রকাশ করি না- বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি আরও বলেন, ‘আমি যেহেতু ধূমপান করি না, তাই আমি চাই না কেউ ধূমপান করুক’। এ সময় আইনকে পাশ কাটিয়ে যেন কোনও কিছু না করা হয়, সেই বিষয়ে সবাইকে অনুরোধ জানান তিনি।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে প্রগতির জন্য জ্ঞান- প্রজ্ঞা’র আয়োজনে ‘তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে অগ্রগতি, বাধা ও করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ সব বলেন।

যে কোনও উন্নতি জাতি গঠনের জন্য সম্মিলিত প্রচেষ্টা দরকার বলে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শুধু মেধা দিয়ে কিন্তু সবকিছু হয় না। একজন মানুষ শুধু তার মেধা দিয়ে সরকারি অনেক বড় কর্তা হতে পারেন, কিন্তু তার মধ্যে যদি মূল্যবোধ না থাকে, দেশাত্মবোধ, মমতা বোধ না থাকে, তাহলে তার দুয়ারটা সাধারণ মানুষের জন্য খোলা থাকবে না। মেধার সঙ্গে দেশাত্মবোধ, মমতাবোধ থাকা প্রয়োজন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশে সরকারি যে বাধ্যবাধকতা আছে তা মেনে যেন বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়। কেউ যদি এতে অসংগতি দেখেন, তবে সেটি তথ্য মন্ত্রণালয়ে আপনারা উপস্থাপন করবেন।’

সভাপতির বক্তব্যে সাংবাদিক মোজাম্মেল হোসেন বলেন, ‘সরকারি-বেসরকারি সংগঠনগুলোর কার্যক্রমের ফলে ধূমপান কিছুটা কমেছে। কিন্তু এই কমার হার যথেষ্ট নয়। প্রধানমন্ত্রী ২০৪০ সালের মধ্যে দেশকে ধূমপানমুক্ত করার লক্ষ্য ঘোষণা করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত লক্ষ্য অর্জনের জন্য ধূমপায়ী- অধূমপায়ী সবাইকে তামাকের বিপজ্জনক বিষয়গুলো আরও বেশি করে জানাতে হবে।’

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন— বিআইএসএস এর গবেষণা পরিচালক ড. মাহফুজ কবীর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, ক্যানসার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. হাবিবুল্লাহ তালুকদার, ডা. গোলাম মহিউদ্দিন প্রমুখ।