logo
আপডেট : ২ মার্চ, ২০১৯ ২৩:৪৮
আইন করেও নারীর প্রতি সহিংসতা থামেনি: আইনমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

আইন করেও নারীর প্রতি সহিংসতা থামেনি: আইনমন্ত্রী

নারী ও শিশুদের অধিকার নিশ্চিতে একাধিক আইন করেও নারী নির্যাতন থেমে নেই বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

শনিবার রাজধানীর বিচার প্রশাসন ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে এক কর্মশালায় এসব কথা বলেন তিনি। “পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধে সরকারি আইনের ভূমিকা” শীর্ষক এ কর্মশালার আয়োজক জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা।    

আইনমন্ত্রী বলেছেন, ডিজিটাল পদ্ধতি কার্যকর হওয়ার পরও গ্রাম পর্যায়ের নারী নির্যাতনের সব খবর পায় না সরকার। তবে এসব তথ্য পৌঁছে দিতে কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলো।  

তিনি বলেন, নারী ও শিশুর ওপর যেকোনো সহিংসতার অভিযোগ পেলে তা সরকারি লিগ্যাল এইড অফিসে পৌঁছানোর জন্য বেসরকারি সংস্থাগুলোকে আহ্বান জানাই। নারীর প্রতি পারিবারিক সহিংসতা রোধে সরকার ২০১০ সালে ‘পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইন’ এবং ২০১৩ সালে ‘পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ বিধিমালা’ প্রণয়ন করেছে জানিয়ে এ আইনের বাস্তব প্রয়োগ নেই বলে আক্ষেপ করেন আনিসুল হক।

তিনি বলেন, আইন করেও পুরোপুরি থামেনি নারীর ওপর সহিংসতার ঘটনা। এ জন্য আইন সম্পর্কে নারীদের পাশাপাশি পুরুষদেরও জানাতে প্রচারণা ও সচেতনতা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন বলে মনে করেন মন্ত্রী।

আনিসুল হক বলেন, পরিবারকেন্দ্রিক সহিংসতার শিকার নারীরা দেশে প্রচলিত আইন সম্পর্কে যথেষ্ট সচেতন হলে এবং তাদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া অপরাধগুলো আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি দাঁড় করালে এ দেশে নারীর প্রতি সহিংসতার ঘটনা অনেকটাই হ্রাস পাবে।

কর্মশালার সভাপতিত্ব করেন জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থার ভারপ্রাপ্ত পরিচালক বিকাশ কুমার সাহা।

এতে আরো বক্তব্য দেন বিচার প্রশাসন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিচারপতি খোন্দকার মূসা খালেদ, আইন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক এবং মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম।