logo
আপডেট : ১০ মার্চ, ২০১৯ ২১:৪১
‘ক্রসফায়ার’ নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ আসকের
নিজস্ব প্রতিবেদক

‘ক্রসফায়ার’ নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ আসকের

‘ক্রসফায়ার নয়, আত্মরক্ষার খাতিরেই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গুলি ছোড়ে’- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করে প্রতিবাদ জানিয়েছে আইন ও সালিস কেন্দ্র (আসক)।

রবিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আসক এই প্রতিবাদ জানায়। গত শনিবার রাজধানীর বিজি প্রেস মাঠে অনুষ্ঠিত মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর আয়োজিত মাদকবিরোধী এক সমাবেশে দেওয়া স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য প্রসঙ্গে আসকের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘মাদকবিরোধী অভিযানের সময় ২০১৮ সালের মে মাস থেকে এ পর্যন্ত ৩১৪ জন  ‘ক্রসফায়ারে’ নিহত হয়েছেন। ক্রসফায়ারে মারা গেলেও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন যে, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী যেভাবে কাজ করছে তা চলমান থাকবে, এ অভিযান বন্ধ হবে না। আর আত্মরক্ষার অধিকার থাকায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তাদের এ অধিকার প্রয়োগ করবে। তিনি (স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী) দক্ষিণ আমেরিকান দেশ ও ফিলিপাইনের মাদকবিরোধী অভিযানের উদাহরণ টেনে এনে বাংলাদেশে চলমান অভিযানের যৌক্তিকতা তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন’।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মাদকবিরোধী অভিযানে এরই মধ্যে সংশ্লিষ্ট বাহিনীগুলোর বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের বেশ কিছু অভিযোগ উঠেছে। আমরা ক্রসফায়ারে নয়, ঠান্ডা মাথায় কাউন্সিলর একরামুল হকের মৃত্যুর অডিও রেকর্ড শুনেছি, যে ঘটনার তদন্তে এখন পর্যন্ত কোন অগ্রগতি দেখা যাচ্ছে না।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যেসব দেশের মাদকবিরোধী অভিযানের দৃষ্টান্ত সামনে এনেছেন, সেগুলো সারা বিশ্বেই সমালোচিত এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন ও ক্ষমতার অপব্যবহারের উৎকৃষ্ট উদাহরণ হিসেবে স্বীকৃত।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যদিও মন্ত্রী দাবি করছেন, প্রথমে প্রতিপক্ষ থেকে আক্রমণ করা হয়। অন্যদিকে, বেশির ভাগ ক্ষেত্রে গণমাধ্যমে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও স্বজনদের ভিন্ন বক্তব্য দেখি। বলা হয়, একই সঙ্গে একই পন্থায় সব সময় মাদকবিরোধী অভিযানে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোকে আক্রমণ করা হচ্ছে, যা এ বাহিনীগুলোর সামর্থ্যকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে।

আসকের মতে, সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিদের এমন বক্তব্যে প্রকৃতপক্ষে নাগরিকের বেঁচে থাকার ও আইনের আশ্রয় পাওয়া সংক্রান্ত সাংবিধানিক অধিকারের লঙ্ঘন এবং জাতিসংঘের মানবাধিকার ব্যবস্থায় প্রদত্ত বাংলাদেশ সরকারের অঙ্গীকারের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ওই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানানোর পাশাপাশি ক্রসফায়ারের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় কমিটি গঠন করে তদন্তের আহ্বান জানায় আসক।