ইলিশ সংরক্ষণের প্রতিপাদ্য সময়োপযোগী হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী|129589|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ মার্চ, ২০১৯ ২১:৫২
ইলিশ সংরক্ষণের প্রতিপাদ্য সময়োপযোগী হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

ইলিশ সংরক্ষণের প্রতিপাদ্য সময়োপযোগী হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

বর্তমান সরকার জাতীয় মাছ ইলিশ সংরক্ষণ ও উন্নয়নে বদ্ধপরিকর এমন তথ্য জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “ইলিশ সংরক্ষণে গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ‘কোনো জাল ফেলবো না, জাটকা ইলিশ ধরবো না’ এ প্রতিপাদ্য অত্যন্ত সময়োপযোগী হয়েছে।”

‘জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ-২০১৯’উপলক্ষে শুক্রবার দেওয়া এক বাণীতে এসব কথা বলেন তিনি। শনিবার (১৬ মার্চ) থেকে ২২ মার্চ পর্যন্ত দেশব্যাপী ‘জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ-২০১৯ পালিত হতে যাচ্ছে জেনে এ বাণীতে সন্তোষ প্রকাশ করেন শেখ হাসিনা।

সাধারণ মানুষকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আসুন, জাটকা সংরক্ষণের এ প্রয়াস শুধু সপ্তাহের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে নিষিদ্ধ সময়েও আহরণে বিরত থাকি।’

বাণীতে তিনি বলেন, ‘আমরা জাটকা সংরক্ষণে সময়োপযোগী ও সমন্বিত উদ্যোগের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় কার্যকর মনিটরিং ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি। এ সংক্রান্ত সব কার্যাদি বর্তমান সরকার কার্যকরভাবে বাস্তবায়নের মাধ্যমে জাতীয় মাছ ইলিশ সংরক্ষণ ও উন্নয়নে বদ্ধপরিকর।’

বাংলাদেশ এখন মাছ উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘একক প্রজাতি হিসেবে ইলিশের অবদান সর্বোচ্চ। ২০০৮-০৯ সালে যেখানে ইলিশের মোট উৎপাদন ছিল ২ দশমিক ৯৯ লাখ টন। ২০১৭-১৮ সালে মোট উৎপাদন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ দশমিক ১৭ লাখ টনে। বর্তমানে এর বাজারমূল্য প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা এবং জাতীয় জিডিপিতে এই একক প্রজাতির অবদান প্রায় ১ শতাংশ।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ইলিশের টেকসই উৎপাদন নিশ্চিত করতে জাটকা আহরণ নিষিদ্ধসহ প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নিষিদ্ধকালে সরকার জেলেদের জন্য খাদ্য সহায়তা প্রদানসহ বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে।’