logo
আপডেট : ৪ এপ্রিল, ২০১৯ ০১:৪১
নৌযান সুরক্ষায় একযোগে কাজ করার আহ্বান
নিজস্ব প্রতিবেদক

নৌযান সুরক্ষায় একযোগে কাজ করার আহ্বান

নৌযান সুরক্ষায় সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী। নৌযান মালিক, শ্রমিক ও সরকার সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করারও আহ্বান জানান তিনি।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ ২০১৯ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান নূর-ই-আলম চৌধুরী।  নৌপরিবহন অধিদপ্তর ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

নূর-ই-আলম চৌধুরী বলেন, দখলমুক্ত, নদী রক্ষা, যাত্রীদের নিরাপত্তা এই সকল বিষয়ে শ্রমিক, মালিকপক্ষসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। এই জন্য স্বল্প এবং দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিতে হবে।  এটি এক বছর, দুই বছর এবং ৫ বছর মেয়াদী হতে পারে।

তিনি বলেন, নদী রক্ষায় সরকার বদ্ধপরিকর। বর্তমান সরকারের আমলে নদী দখলমুক্ত হচ্ছে যা অতীতে কেউ করতে পারেনি।  এমন জায়গা দখলমুক্ত হচ্ছে, এখানে যে নদী ছিল সেটা আমরা ভুলেই গিয়েছিলাম।

লঞ্চ মালিকদের উদ্দেশে চিফ হুইপ বলেন, শুধু ব্যবসা করলেই চলবে না, যাত্রীদের সুরক্ষায় কাজ করতে হবে।  যাত্রীদের ইনস্যুরেন্স করানোর ক্ষেত্রে মালিকের ভূমিকা রাখতে পারেন।

তিনি বলেন, দেশে ২৬ হাজার জাহাজের অনুমোদন আছে।  আর এইগুলো চালানোর জন্য ২২৫ জন পাইলট রয়েছে।  যদি চার ভাগের একভাগও জাহাজ প্রতিদিন চলে তাহলে কীভাবে কারা এইগুলো চালায়। সুতরাং পাইলট ছাড়াই জাহাজ চলছে। তার মানে আমরা নিজেরাই আইন ভাঙছি।

আলোচনা সভায় নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ বলেন, বর্তমান সরকারের ১০ বছরে নৌ সেক্টরে যে পরিবর্তন হয়েছে গত ৩৮ বছরে সেটি হয়নি।  ২০০৮ সাল পর্যন্ত ডেজারের সংখ্যা ছিল ৭টি। এখন সেটির সংখ্যা ৪০ এবং আরো ৩৫টি সংযুক্ত হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, গত ১০ বছরে ড্রেজার বা ড্রেজিং কি সেটি মানুষ চিনেছে। এখন ড্রেজিং ব্যবসায় অনেক বড় বড় ব্যবসায়ীরাও আসছেন।  অর্থ্যাৎ সরকার এটিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আবদুস সামাদ। আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক চেয়ারম্যান ড. রিয়াজ হাসান খন্দকার।  অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন সৈয়দ আবুল মকসুদ,  কমডোর মাহবুব উল ইসলাম, নৌ পুলিশের ডিআইজ মুহাম্মদ মারুফ হাসান, ক্যাপ্টেন আরিফ মাহমুদ এবং নৌ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

‘দূষণ, দখলমুক্ত করি, নৌ যাত্রা নিরাপদ করি, বিশ্বমানের নৌ ব্যবস্থার স্বপ্নকে সফল করি’— এই প্রতিপাদ্যকে নির্ধারণ করে গত ৩০ মার্চ থেকে সপ্তাহব্যাপী পালিত হচ্ছে নৌপরিবহন সপ্তাহ ২০১৯।