বিজিএমইএ ভবন ভাঙার কার্যক্রম শুরু|136517|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১০:১২
বিজিএমইএ ভবন ভাঙার কার্যক্রম শুরু
অনলাইন ডেস্ক

বিজিএমইএ ভবন ভাঙার কার্যক্রম শুরু

হাতিরঝিলে অবস্থিত বিজিএমইএ ভবন ভাঙার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে মঙ্গলবার সকালে। সেখানকার গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি, টেলিফোন লাইনসহ সব ধরনের সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা শুরু হয়েছে। উপস্থিত আছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এরপরই মূল ভবন ভাঙার কাজ শুরু হবে।

ভবন ভাঙার সময় পুলিশ সেনাবাহিনী, আনসার, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গেছে।

এর আগে ১২ এপ্রিল বিজিএমইএ ভবন অপসারণে আপিল বিভাগের দেওয়া এক বছর সময় শেষ হয়েছে।

২০১৮ সালে ২ এপ্রিল হাইকোর্ট ভবনটিকে ‘ক্যানসার’ অভিহিত করে ভেঙে ফেলার জন্য পোশাক ও রপ্তানিকারকদের শীর্ষ সংগঠনটিকে এক বছর দশ দিন সময় দেন। পরে আপিলে একই রায় বহাল থাকে।

এদিকে সোমবার উত্তরার নতুন কার্যালয়ে অফিস করতে শুরু করেছেন সংগঠনটির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। অগোছালো অফিস সাজানোর পাশাপাশি পুরোনো সভাপতিকে বিদায় ও নতুন সভাপতিকে বরণের প্রস্তুতিও নিচ্ছেন তারা।

৩ এপ্রিল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উত্তরার নতুন ভবনটি উদ্বোধন করেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, শুক্রবার থেকে রোববার পর্যন্ত টানা তিন দিন কারওয়ান বাজারের বিজিএমইএ ভবন থেকে সব ধরনের মালামাল উত্তরার অফিসে নেওয়া হয়েছে।

এ অবস্থার মধ্যে নির্বাচিত নতুন সভাপতি ও মোহাম্মদী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রুবানা হকের কাছে দায়িত্বভার ছেড়ে নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিদায়ী সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান। বুধবার সভাপতি হিসেবে নতুন অফিসে দেশের পোশাক শিল্প বিষয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা ডেকেছেন সিদ্দিকুর রহমান।

১৯৯৮ সালের ২৮ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কারওয়ানবাজারে দুই বিঘা জমির ওপর বিজিএমইএ কমপ্লেক্স নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ১৬ তলা ভবন নির্মাণ শেষ হলে ২০০৬ সালের ৮ অক্টোবর তখনকার প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ভবনটি উদ্বোধন করেন। তখন থেকেই ১৬ তলা ভবনটির চতুর্থ ও পঞ্চম তলা কার্যালয় হিসেবে রেখে বাকি ফ্লোরগুলো একটি ব্যাংক ও বিভিন্ন পোশাক মালিকদের কাছে বিক্রি করে বিজিএমইএ।