আড়াই লাখ রোহিঙ্গার পরিচয়পত্র দেয়া হচ্ছে|143424|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ মে, ২০১৯ ২২:৪১
আড়াই লাখ রোহিঙ্গার পরিচয়পত্র দেয়া হচ্ছে
বিশেষ প্রতিনিধি

আড়াই লাখ রোহিঙ্গার পরিচয়পত্র দেয়া হচ্ছে

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নিপীড়নের মুখে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া ১০ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গার মধ্যে আড়াই লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক পরিচয়পত্র পাচ্ছেন। বাংলাদেশ সরকার এবং জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) তাদেরকে পরিচয়পত্র সরবরাহ করবে।

যেসব শরণার্থীর বয়স ১২ বছরের ওপরে তাদেরকে নতুন এই পরিচয়পত্র দেয়া হয়েছে। এতে রয়েছে তাদের নাম, পারিবারিক সম্পর্ক, আঙুলের ছাপ ও চোখের আইরিসের স্ক্যান। আর শরণার্থীদের মূল দেশ মিয়ানমার হিসেবে তাতে নিবন্ধিত হয়েছে।

জাতিসংঘ শরণার্থী সংস্থা বলেছে, রোহিঙ্গাদের এই নিবন্ধন ও পরিচয়পত্র মানবপাচার ঠেকাতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে সহায়তা করবে।

সংস্থাটি জানায়, শুক্রবার পর্যন্ত বাংলাদেশে আড়াই লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থীর নিবন্ধন করা হয়েছে। তাদের প্রথম ধাপে এই কার্ড দেয়া হচ্ছে।

সংস্থাটির মতে, এটি তাদের প্রথম শনাক্তকরণ কার্ড এবং ভবিষ্যতে মিয়ানমারে ফিরে যাওয়ার অধিকার প্রয়োগে এটি তাদের প্রমাণ হিসেবে কাজ করবে।

এ বিষয়ে ইউএনএইচসিআরের মুখপাত্র আন্দ্রেজ মাহেসিক বলেছেন, আড়াই লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী যৌথভাবে নিবন্ধিত হয়েছে এবং বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ ও ইউএনএইচসিআর তাদেরকে পরিচয়পত্র সরবরাহ করবে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে ২০১৮ সালের জুনে। তারা যাতে মিয়ানমারে ফিরে যেতে পারেন সেই অধিকারের পক্ষে এই নিবন্ধন একটি সেফগার্ড হিসেবে কাজ করবে।

২০১৭ সালের আগস্টে সেনাবাহিনীর নিপীড়নে মিয়ানমার থেকে ৭ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। আগে থেকেই ৩ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক শরণার্থীশিবিরে আশ্রিত ছিলেন।

গত বছর বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের জন্য চুক্তি হয়। যাতে প্রতি সপ্তাহে ১৫০০ রোহিঙ্গাকে ফেরত নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মিয়ানমারের অসহযোগিতায় বিষয়টা এখনো ঝুলে আছে।