ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন ১০ জুলাই|152154|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৩০ জুন, ২০১৯ ২৩:১৯
ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন ১০ জুলাই
নিজস্ব প্রতিবেদক

ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন ১০ জুলাই

মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলায় ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের চার্জ গঠন শুনানি পিছিয়েছে। আগামী ১০ জুলাই নতুন দিন ধার্য করেছেন বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামশ জগলুল হোসেনের আদালত।

রোববার মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ধার্য ছিল। এদিন মোয়াজ্জেম হোসেনের আইনজীবী অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছানোর জন্য সময়ের আবেদন করেন। বিচারক সময়ের আবেদন মঞ্জুর করে ১০ জুলাই দিন ধার্য করেন।

অপরদিকে আসামি পক্ষের আইনজীবী আদালতে আরও দু'টি আবেদন করেন। প্রথমত তিনি এজলাসে পুলিশের উপস্থিতিতে আসামির সঙ্গে আইনজীবীদের প্রয়োজনীয় কথাবার্তা বলার সুযোগ চান, দ্বিতীয়ত মামলার আর্জিতে বর্ণিত (সংযুক্ত) পেনড্রাইভের কপির জন্য আবেদন করেন। আদালত পেনড্রাইভের কপির আবেদন মঞ্জুর করলেও এজলাসে কথা বলার আবেদন নামঞ্জুর করেন।

এর আগে রোববার সকাল ৯টার দিকে মোয়াজ্জেমকে কাশিমপুর কারাগার থেকে প্রিজন ভ্যানে করে ঢাকা জজ কোর্টে আনা হয়। এসময় তাকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়। বেলা ২টায় তাকে আদালতের ৪ তলায় অবস্থিত বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালে নেয়া হয়।

বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মাদ আস সামশ জগলুল হোসেনের আদালতে ওই মামলার চার্জগঠন শুনানি হয়।

এর আগে ২৪ জুন জেল কোড অনুযায়ী ওসি মোয়াজ্জেমের ডিভিশনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন।

১৭ জুন বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আস শামস জগলুল হোসেন ওসি মোয়াজ্জেমের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ১৬ জুন রাজধানীর শাহবাগ থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

২৭ মে বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক পিবিআইয়ের প্রতিবেদন আমলে নিয়ে এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। মামলার বাদী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন আসামি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেন। আদালত বাদীর আবেদন আমলে নিয়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। এদিন সকালে মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) সদর দফতরের সিনিয়র এএসপি রিমা সুলতানা।

ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে তার মা শিরীন আক্তার বাদী হয়ে গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী থানায় সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজউদ্দৌলার বিরুদ্ধে মামলা করেন। এর পর অধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের নামে নুসরাতের বক্তব্য ভিডিও করেন ওসি মোয়াজ্জেম। পরে সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েও দেন তিনি।

ভিডিও করে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে ১৫ এপ্রিল ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ব্যারিস্টার সুমন।