চার গুরুত্বপূর্ণ পদ কেবল আইনে|154303|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১১ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০
চার গুরুত্বপূর্ণ পদ কেবল আইনে
শাহাদাত বিপ্লব, কুবি

চার গুরুত্বপূর্ণ পদ কেবল আইনে

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) উপ-উপাচার্য, বিষয়ভিত্তিক কয়েকটি পরিচালকের পদ কেবল আইনেই সীমাবদ্ধ। দীর্ঘদিনেও এসব পদে কাউকে নিয়োগ দেওয়া হয়নি। দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে কোষাধ্যক্ষ পদ শূন্য। বেশ কয়েকটি পদ চলছে ভারপ্রাপ্ত দিয়ে। এতে প্রশাসনিক কাজে বিভিন্ন জটিলতা তৈরি হচ্ছে।

কর্মকর্তারা বলছেন, ২০১৩ সালে ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০০৬’ এর ১১ ধারা সংশোধন করে উপ-উপাচার্যের পদ সৃষ্টির পর প্রায় ৬ বছর পেরিয়ে গেলেও এই পদে কাউকে নিয়োগ দেওয়া হয়নি। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় আইনে পরিচালক (গবেষণা ও সম্প্রসারণ), পরিচালক (বহিরাঙ্গন) এবং পরিচালক (শরীরচর্চা শিক্ষা) পদসমূহের উল্লেখ থাকলেও এখন পর্যন্ত কোনো কর্মকর্তা নেই। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গবেষণা পরিচালক না থাকায় বিশ্বববিদ্যালয়ে গবেষণা কার্যক্রমে এর প্রভাব পড়ছে। এছাড়া অন্য পদগুলো খালি থাকায় বিভিন্ন সময় প্রশাসনিক জটিলতা দেখা দেয়।

২০১৭ সালের ২৪ এপ্রিল কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কু- গোপীদাসের মেয়াদ শেষের এর প্রায় ২ বছর ২ মাস পেরিয়ে গেলেও নতুন কাউকে নিয়োগ দেওয়া হয়নি। দীর্ঘ সময় পদ শূন্য থাকায় কোষাধ্যক্ষের কাজগুলো দেখছেন উপাচার্য। এতে তার ওপর কাজের চাপ বাড়ছে। আগের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আলী আশরাফের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর নতুন উপাচার্য নিয়োগে দুই মাস বিলম্ব হয়। ওইসময় কোষাধ্যক্ষ না থাকায় শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ২ মাসের বেতন-ভাতা আটকে ছিল।

এদিকে এছাড়া পরিচালক (অর্থ ও হিসাব), পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক, জনসংযোগ কর্মকর্তার পদে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে কার্যক্রম চলছে। অর্থ ও হিসাব দপ্তরে কামাল উদ্দিন ভুঁইয়া ভারপ্রাপ্ত পরিচালক, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের দপ্তরে মোহাম্মদ নূরুল করিম চৌধুরী এবং জনসংযোগ কর্মকর্তা হিসেবে মোহাম্মদ এমদাদুল হক ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। লাইব্রেরিয়ান পদেও সরাসরি নিয়োগপ্রাপ্ত কোনো কর্মকর্তা নেই। সাবেক রেজিস্ট্রার মো. মজিবুর রহমান মজুমদারকে ওই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

উপ-উপাচার্য ও কোষাধ্যক্ষ নিয়োগের বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, ‘এই দুইটি পদে নিয়োগ দেওয়ার জন্য আমি শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে বারবার বলেছি। বিশেষ করে কোষাধ্যক্ষ পদে কাউকে নিয়োগ দিলে আমার ওপর চাপ কমত।’

রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘যে পদগুলোতে ভারপ্রাপ্তরা দায়িত্বে আছেন তার মধ্যে অনেক পদের বিপরীতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে এবং বাকি পদগুলোতেও নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান। গবেষণা ও সম্প্রসারণের জন্য খুব শিগগিরই পৃথক একটি দপ্তর চালু করে অভিজ্ঞ একজন শিক্ষককে দায়িত্ব দেওয়া হবে।’ বহিরাঙ্গনের জন্যও পরিচালক নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।