logo
আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২২:০৬
জাতিসংঘে প্রথম বাংলাদেশি নারী কূটনীতিক রাবাব ফাতিমা
নিজস্ব প্রতিবেদক

জাতিসংঘে প্রথম বাংলাদেশি নারী কূটনীতিক রাবাব ফাতিমা

১৯৭৪ সালে জাতিসংঘের সদস্যপদ লাভের পর এই প্রথম কোনো নারী কূটনীতিককে জাতিসংঘের স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। জাপানে নিয়োজিত রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমাকে বুধবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশের নতুন রাষ্ট্রদূত ও স্থায়ী প্রতিনিধি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়। তিনি হবেন জাতিসংঘের ১৪ তম স্থায়ী প্রতিনিধি।

রাবাব ফাতিমা ১৯৮৬ সালে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএসের) পররাষ্ট্র ক্যাডারে যোগ দেন। তিনি নিউইয়র্কে বাংলাদেশ মিশন ছাড়াও জেনেভা, কলকাতা এবং বেইজিংয়ে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। তার স্বামী কাজী ইমতিয়াজ হোসাইন ফ্রান্সে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন। তাদের এক মেয়ে রয়েছেন।

রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা লিয়েনে দুটি আন্তর্জাতিক সংস্থায় কাজ করেছেন। ২০০৬-২০০৭ মেয়াদে লন্ডনে কমনওয়েলথ সচিবালয়ে মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান ছিলেন তিনি।এরপর ২০০৭ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা-আইওএমে (ঢাকা ও ব্যাংককে) কাজ করেছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের টুফটস বিশ্ববিদ্যালয়ের ফ্লেচার স্কুল অব ল অ্যান্ড ডিপ্লোমেসি থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্কে স্নাতকোত্তর করেছেন রাবাব ফাতিমা।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, জাতিসংঘে বর্তমানে নিযুক্ত স্থায়ী প্রতিনিধি মাসুদ বিন মোমেনকে পররাষ্ট্র সচিব হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে। আগামী ডিসেম্বরে পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হকের বর্ধিত মেয়াদ শেষে মাসুদ বিন মোমেন এই দায়িত্বে আসবেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে।