logo
আপডেট : ১০ অক্টোবর, ২০১৯ ১৭:২৮
আবরার হত্যার নিখুঁত অভিযোগপত্র শিগগিরই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

আবরার হত্যার  নিখুঁত অভিযোগপত্র শিগগিরই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার নিখুঁত অভিযোগপত্র ‘শিগগিরই’ দাখিল করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

তিনি বলেছেন, আমরা আশা করি খুব শিগগির এ মামলার পূর্ণাঙ্গ চার্জশিট প্রদান করতে পারব। আমাদের পুলিশ এ কাজটি করছে, যাতে চার্জশিট নিখুঁত হয়, সব যেন নির্ভুল হয়।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কেন এ হত্যাকাণ্ড, সবগুলোরই এখন তদন্ত হবে। আমরা ভিডিও ফুটেজ দেখে তাদের শনাক্ত করেছি। আরও যদি কেউ জড়িত থাকেন, সবাইকে আমরা ধরব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত শক্ত ভাষায় এ বিষয়ে কথা বলেছেন।
তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদ ছিলেন শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষের আবাসিক ছাত্র।  রোববার রাতে তাকে সেখান থেকে ডেকে নিয়ে যায় বুয়েট ছাত্রলীগের কয়েকজন। 

ফেইসবুকে মন্তব্যের সূত্র ধরে শিবির সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে আবরারকে লাঠি ও ক্রিকেট স্টাম্প দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয় বলে ইতোমধ্যে পুলিশের তদন্তে উঠে এসেছে।

আবরার হত্যায় জড়িতদের পুলিশ ‘যথাসময়ে’ গ্রেপ্তার করতে পেরেছে মন্তব্য করে মন্ত্রী বলেন, আমরা আশা করি, বিচারের কাজটা যাতে দ্রুততার সঙ্গে শেষ হয়। একটা নিখুঁত চার্জশিট দিয়ে সেটা আমরা সহজতর করে দিচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী হলগুলোতে কবে থেকে তল্লাশি চালানো হবে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা আলোচনার মাধ্যমে ঠিক করে নেব। আরো কিছু ফর্মালিটিজ পালন করতে হয়, আপনারা জানেন, ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে। তবে আমরা কলেজগুলোতেও দেখব।

বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে ‘টর্চার সেল’ ও ‘র‌্যাগিং’ নিয়ে এক পশ্নে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, আমার মনে হয় বেশি রকম এ কালচারটা রয়েছে বুয়েটে। বুয়েটে আমরা এটা বেশি দেখেছি। কিছুটা দেখেছি জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটিতে, ঢাকা ইউনিভার্সিটিতে বেশি নেই আমার মনে হয়। এ কালচার থেকে  কীভাবে বেরিয়ে আসবেন, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের এ নিয়ে চিন্তাভাবনা করা উচিত বলে আমি মনে করি।