যে কারণে শি চিনপিংয়ের নেপাল সফর গুরুত্বপূর্ণ|173811|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ১৯:৪০
যে কারণে শি চিনপিংয়ের নেপাল সফর গুরুত্বপূর্ণ
অনলাইন ডেস্ক

যে কারণে শি চিনপিংয়ের নেপাল সফর গুরুত্বপূর্ণ

ভারত সফর শেষে নেপালে পৌঁছেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং। দেশটিতে দুইদিনের সফরে শনিবার কাঠমান্ডুতে পৌঁছান তিনি। 

নেপালি টাইমস জানায়, বিমানবন্দরে শি চিনপিংকে স্বাগত জানান নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারি। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী কেপি ওলিসহ মন্ত্রিপরিষদের গুরুত্বপূর্ণ সদস্যরা।

১৯৯৬ সালের পর এ প্রথম কোনো চীনা প্রেসিডেন্ট নেপালে সফর করলেন। এদিন লাল গালিচা সংবর্ধনাসহ সেনাবাহিনীর প্যারেড এবং সাংস্কৃতিক পরিবেশনের মাধ্যমে স্বাগত জানানো হয় চিনপিংকে। 

নেপাল সফরে প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী, বিরোধী দলীয় নেতা ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী শের বাহাদুর দেওবা সঙ্গে আলাদা আলাদাভাবে বৈঠকে অংশ নেবেন চীনা প্রেসিডেন্ট।

কাঠমান্ডু ছাড়ার আগ মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রী ওলির সঙ্গে দ্বি-পাক্ষিক বৈঠকেও অংশ নেবেন শি চিনপিং। সেখানে দুই দেশের মধ্যে এক ডজনের মতো চুক্তি সম্পাদিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঐতিহাসিকভাবে ভারতের মিত্র হিসেবেই পরিচিত নেপাল। গৃহযুদ্ধ অবসানের পর নতুন রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে চীনের আনুকূল্য পেতে আগ্রহী দেশটি। সেদিক দিয়ে দেশটিতে শি চিনপিংয়ের এই সফর বেশ গুরুত্বপূর্ণ হিসেবেই দেখা হচ্ছে।।

চিনপিংয়ের এই সফরে চীন থেকে দুইটি রুটে কাঠমান্ডু পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ ও সম্প্রসারণ, একটি টানেল সড়ক নির্মাণ, তিন করিডর হাইওয়ে নির্মাণে সহায়তা এবং একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করার ব্যাপারে বেইজিংয়ের সঙ্গে চুক্তি করার কথা রয়েছে নেপালের।

বিপুল পরিমাণ চীনা বিনিয়োগের পাশাপাশি এসব চুক্তি বাস্তবায়ন হলে চীনের সঙ্গে কাঠমান্ডুর যোগাযোগ আরও বৃদ্ধি পাবে। সেই সঙ্গে নেপালের স্থানীয় অর্থনীতিতে বড় ধরনের প্রভাব ফেলবে চীন, এমনটাই মনে করছেন কূটনীতিকেরা।