সড়কে ওভারটেকের মতো অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর|175732|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২২ অক্টোবর, ২০১৯ ১৪:৪১
সড়কে ওভারটেকের মতো অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
অনলাইন ডেস্ক

সড়কে ওভারটেকের মতো অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

দুর্ঘটনা প্রতিরোধে রাস্তায় ফিটনেসবিহীন যান চলাচল এবং ওভারটেকের মতো অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি নির্দেশ প্রদান করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস-২০১৯’ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ নির্দেশ দেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ওভারটেক নামক অসুস্থ প্রতিযোগিতা এবং ফিটনেসবিহীন গাড়িকে সড়কে চালানো দুর্ঘটনার অন্যতম একটি কারণ। এই অসুস্থ প্রতিযোগিতা বন্ধ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘কেউ যদি অহেতুক নিয়মের বাইরে গিয়ে গাড়ি বা ট্রাকের আকার পরিবর্তন করে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমাদের ট্রাফিক পুলিশকেও এ বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘ড্রাইভারদেরও দোষ রয়েছে। কোনো গাড়ি তাদের ওভারটেক করলে যেন মাথা খারাপ হয়ে যায়। ওই গাড়িকে তাদেরও ওভারটেক করতেই হবে। ফলে দুর্ঘটনা ঘটে থাকে।’

সড়ক নিরাপদ করতে গেলে মানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের দেশের মানুষদের একটা প্রবণতা হচ্ছে দুর্ঘটনা ঘটলে চালককে সবচেয়ে বেশি গালমন্দ করা হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে কিন্তু কেবল চালক নয়, পথচারীরাও অনেকাংশে দায়ী। কারণ ফুটওভার ব্রিজ, আন্ডারপাস, ওভার পাস থাকার পরেও দেখা যায় যে পথচারীরা রাস্তার মাঝখান দিয়ে পারাপার হচ্ছে, ফুটপাত ব্যবহার করছে না। একটি চলন্ত গাড়িকে কেবল হাত দেখিয়ে দৌড় দিয়ে বা মোবাইলে কথা বলতে বলতেই তারা রাস্তা পার হয়ে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘গাড়িটা তো একটা যন্ত্র। কাজেই ব্রেক কষলেও তো থামতে এর কিছুটা সময় লাগে। কাজেই এই বোধটা বা জ্ঞানতো তাদের থাকতে হবে। সেই সঙ্গে সড়ক চলাচলের যে আইন রয়েছে তাওতো মেনে চলতে হয়। এসব বিষয়ে সচেতনতাও সৃষ্টি করা হয় না।’

স্কুল পর্যায়ে ট্রাফিক আইন বিষয়ে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ প্রদানের ওপর গুরুত্বারোপ করে সরকার প্রধান বলেন, ‘এজন্য স্কুল-কলেজ এবং যেসব প্রতিষ্ঠানে অধিক জনবল কাজ করে তাদের মাঝে ট্রাফিক আইন বা ট্রাফিক রুল বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি এবং প্রয়োজনীয় শিক্ষা দেওয়াটা একান্তভাবে প্রয়োজন।’

সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।