বসুন্ধরা কিংসের করুণ দশা|175845|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০
বসুন্ধরা কিংসের করুণ দশা
সুদীপ্ত আনন্দ, চট্টগ্রাম থেকে

বসুন্ধরা কিংসের করুণ দশা

ঘরোয়া ফুটবল আর আন্তর্জাতিক ফুটবল যে এক নয়, সেই শিক্ষাটাই যেন পেল বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরা কিংস। প্রথমবারের মতো কোনো আন্তর্জাতিক আসরের অভিষেকটা তাদের হলো হার দিয়ে। শেখ কামাল ক্লাব কাপে কাল তারা ৩-১ গোলে হেরে গেছে ভারতের গোকুলাম কেরালা এফসির কাছে। দীর্ঘ বিমান ভ্রমণ শেষে সোমবার বিকেলে চট্টগ্রামে পৌঁছেই গতকাল সন্ধ্যায় খেলতে নেমেছিল ঢাকা আবাহনীর বিকল্প হয়ে খেলতে আসা গোকুলাম। কিন্তু ক্লান্তির ছিটেফোঁটা দেখা যায়নি তাদের খেলায়। প্রতি আক্রমণনির্ভর ফুটবল খেলে তারা পেয়েছে সফলতা। আর কিংসকে দিতে হয়েছে বাজে ডিফেন্ডিংয়ের মাশুল। তাতে সেমিফাইনালের পথটা সংকীর্ণ হয়ে গেল তাদের জন্য।

যদিও ম্যাচের ২৩ মিনিট অবধি ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ছিল কিংসের কাছেই। এরপরই ধারার বিপরীতে গোল পেয়ে যায় গোকুলাম কেরালা। নিজের অর্ধ থেকে আন্দ্রে দেনিস বল পাঠান ত্রিনিদাদের প্লে-মেকার নাথানিয়েল গার্সিয়াকে। তিনি ক্রস ফেলেন বক্সের ভেতরে। বুক দিয়ে নামিয়ে গায়ে গায়ে সেঁটে থাকা ইয়াসিন খান এবং ইব্রাহিমকে বোকা বানিয়ে কোনাকুনি শট নেন উগান্ডার ফরোয়ার্ড হেনরি কিসেকা, যা বসুন্ধরা গোলরক্ষক আনিসুর রহমানের গøাভস ছুঁয়ে আশ্রয় নেয় জালে। পিছিয়ে পড়ে যেন নিজেদের উদ্যম হারিয়ে ফেলে কিংস। ফলশ্রæতিতে এলোমেলো খেলে গোকুলামকে সুযোগ দেয় আক্রমণে যেতে। সাত মিনিট পর বক্সের ঠিক বাইরে রবিউল হাসানের হ্যান্ডবল থেকে ফ্রি-কিক পেয়ে যায় তারা। গার্সিয়ার চোখধাঁধানো ফ্রি-কিক সরাসরি চলে যায় দূরের পোস্টে। ৪৪ মিনিটে ভালো সুযোগ পেয়েছিল কিংস। কিন্তু কলিনদ্রেসের নিচু ক্রসে রবিউলের সাইডভলি অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

তিন ডিফেন্ডার নিয়ে খেলার মাশুল দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে আরেকবার দিতে হয় কিংসকে। আরেকবার গার্সিয়া-হেনরি জুটিতে সফলতা পায় গোকুলাম। এবার গার্সিয়ার কাটব্যাকে ঠাণ্ডা মাথায় হেনরির শট খুঁজে পায় জালে ঠিকানা। নিজে পান নিজের দ্বিতীয় গোলের দেখা। শেষ ২৫ মিনিট অবশ্য ম্যাচে ফেরার জন্য মরিয়া চেষ্টা করে কিংস। কিন্তু পারেনি।

ম্যাচ শেষে নিজেদের প্রস্তুতির ঘাটতির কথা বলেছেন কিংস কোচ অস্কার ব্রæজন। তার দাবি তারা পুরো দলকে নিয়ে প্রস্তুতি নিতে পেরেছে মাত্র তিন দিন।