জামিনের পর হাসপাতালে পাকিস্তানের নওয়াজ শরিফ|176602|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ অক্টোবর, ২০১৯ ২২:১৬
জামিনের পর হাসপাতালে পাকিস্তানের নওয়াজ শরিফ
অনলাইন ডেস্ক

জামিনের পর হাসপাতালে পাকিস্তানের নওয়াজ শরিফ

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ জামিন পাওয়ার পর শনিবার সকালে আবার লাহোরের এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেসের (এসআইএমএস) প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ড. মাহমুদ আয়াজের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে দ্য ডন।

পিএমএল-এন এর নেতা নওয়াজ শরিফের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার তথ্যটি ভুল বলে উল্লেখ করেন ডা. মাহমুদ আয়াজ।

শারীরিক অসুস্থতার কারণে নওয়াজ শরিফকে জামিন দেয় লাহোরের হাইকোর্ট। শুক্রবার তার জামিন মঞ্জুর করেন আদালত।

অ্যাকিউট ইমিউন ডিজঅর্ডারে ভুগছেন নওয়াজ শরিফ। সোমবার রাতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে লাহোরের সার্ভিস হাসপাতালে ভরতি করা হয়।

অ্যাকিউট ইমিউন ডিজঅর্ডারের কারণে তার প্ল্যাটিলেট কাউন্ট অস্বাভাবিক হারে কমে যায়। যে কারণে রক্তক্ষরণও হচ্ছে।

তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ড জানিয়েছে, সম্পূর্ণ সুস্থ হতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে নওয়াজ শরিফের।

এর আগে ইসলামাবাদ হাইকোর্টে অসুস্থতার কথা উল্লেখ করে পিএমএল-এনের এ নেতার পক্ষ থেকে জামিনের আবেদন করা হয়।

এরপর শনিনবার ডা. মাহমুদ আয়াজ সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় বলেন, তার (নওয়াজ) প্লাটিলেট কাউন্ট বেড়ে গেছে। তাকে প্রতিদিন ১৬টি ইন্ট্রাভেনাস ইমিউনোগ্লোবিউলিনের (আইভিআইজি) ইনজেকশন দিতে হবে।

তিনি জানান, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের প্লেটলেট কাউন্ট এখন ৪০ হাজারে পৌঁছেছে। এনজাইনা অ্যাটাকের পর তাকে প্রয়োজনীয় ওষুধ দেয়া হয়েছে। তাকে অক্সিজেন দেয়ার বা ভেন্টিলেটরে রাখার প্রয়োজন হয়নি।

এ চিকিৎসক বলেন, আমরা নওয়াজ শরিফের শারীরিক অবস্থার উন্নতির জন্য চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন পাকিস্তানের এই সাবেক প্রধানমন্ত্রীর মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ। চিকিৎসক আয়াজ জানান, আরেকজন বিশেষজ্ঞ তার দেখাশোনা করছেন।

নওয়াজ শরিফের ব্যক্তিগত চিকিৎসক তার স্বাস্থ্যের অবনতি নিয়ে আশঙ্কার কথা জানালে এই সপ্তাহের শুরুতে তাকে (নওয়াজ) এসআইএমএসে নেয়া হয়।

হাসপাতালটির চিকিৎসকরা মঙ্গলবার জানায় সাবেক প্রধানমন্ত্রীর শারীরিক অবস্থা খুব একটা সুবিধাজনক নয়।

এদিনের মেডিকেল টেস্টগুলো অনুসারে, সোমবার হাসপাতালে নেয়ার পর তার প্লাটিলেট কাউন্ট ১৬ হাজার থেকে কমে দুই হাজারে নেমে যায়।

আয়াজের নেতৃত্বে গঠিত ছয় সদস্যের মেডিকেল বোর্ডটি তিনদিন পর বৃহস্পতিবার নওয়াজ শরিফের স্বাস্থ্যে অবনতির কারণ শনাক্ত করতে পারে।

গত বছরের ডিসেম্বরে নওয়াজ শরিফকে দুর্নীতি মামলায় ৭ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।