শুধু মিষ্টি খেয়ে সমুদ্রে দুই দিন বেঁচে ছিলেন খুশিলা|178653|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৫ নভেম্বর, ২০১৯ ১২:২৭
শুধু মিষ্টি খেয়ে সমুদ্রে দুই দিন বেঁচে ছিলেন খুশিলা
অনলাইন ডেস্ক

শুধু মিষ্টি খেয়ে সমুদ্রে দুই দিন বেঁচে ছিলেন খুশিলা

রাবারের ডিঙি নিয়ে সাগরে হারিয়ে যান খুশিলা স্টেইন। দুই দিন পর গ্রিসের নিকটবর্তী জলসীমা থেকে তাকে উদ্ধার করে কোস্ট গার্ড সদস্যরা। আর এই নারীর বেঁচে যাওয়া একদম গল্পের মতোই।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানা যায়, ডিঙিতে ছিল না পানি। মিষ্টিজাতীয় খাবার ললি খেয়ে বিরূপ পরিবেশে টিকে ছিলেন খুশিলা।

৪৫ বছরের খুশিলা এসেছিলেন নিউজিল্যান্ড থেকে। তাকে রবিবার গ্রিসের বড় দ্বীপ ক্রিটের দক্ষিণের এজিয়ান সাগর থেকে উদ্ধার করা হয়।

এই নারী স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে এসেছিলেন ফোলেগান্ডরোজ দ্বীপ। শপিং করতে গিয়ে আর ফিরে আসেননি হোটেলে। এর ৩৭ ঘণ্টা পর তাকে উদ্ধার করা হয়।

অভিজ্ঞ নাবিক খুশিলা ললি খেয়ে বেঁচেছিলেন। আর ঠান্ডা থেকে রক্ষা পেতে নিজেকে প্লাস্টিক ব্যাগে মুড়িয়ে নেন। মাথায় বাঁধেন লাল ব্যাগ। অন্যদের মনোযোগ আকর্ষণে জুড়ে দেন একটি আয়না।

বিস্তৃত অঞ্চল নিয়ে তল্লাশির পর তাকে গ্রিসের কোস্ট গার্ডরা উপকূল থেকে ১০১ কিমি দূরে খুঁজে পান।

এর আগে খুশিলার মা ওয়েন্ডি স্টেইন জানিয়েছিলেন, সমুদ্রে টিকে থাকার মতো প্রশিক্ষণ রয়েছে তার মেয়ের।

জানা যায়, হোটেলে ফেরার পথে দক্ষিণ তুরস্ক থেকে এথেন্সগামী এক ব্রিটিশ নাগরিককে ইয়ট চালাতে সাহায্য করতে গিয়েছিলেন খুশিলা। এরপর ডিঙিতে নামেন খুশিলা। কিন্তু ঝোড়ো হাওয়ার কারণে তিনি ইয়টে ফিরতে পারেননি। শনিবার সকালে গ্রিক কর্তৃপক্ষকে এই খবর দেন ইয়টটির মালিক মাইক।

তবে মাইকের সঙ্গে খুশিলার সম্পর্ক, পরিচয় সূত্র বা এই বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি।

খুশিলার খোঁজে নামে ছয়টি জাহাজ, একটি হেলিকপ্টার ও আন্ডারওয়াটার ড্রোন।

এদিকে খুশিলার ভয় ছিল তিনি ডাঙায় জীবিত ফিরতে পারবেন না। তাই ডিঙির এক পাশে তিনি মায়ের নাম ও ঠিকানা লিখে রাখেন। পরে ক্রিট ও ফোলেগান্ডরোসের মাঝামাঝি থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।  

উদ্ধারের পর খুশিলাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। উদ্ধারের পর তিনি মাকে বলেন, “মা তোমার জন্য একটি ললি অবশিষ্ট আছে।”