একা একাই অনেকে সুখী|178911|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৬ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:০৩
একা একাই অনেকে সুখী
অনলাইন ডেস্ক

একা একাই অনেকে সুখী

অভিনেত্রী এমা ওয়াটসন

রূপকথার জীবন কত সুন্দর। তাই না? ভাগ্যবানদের সঙ্গে দেখা হয়ে যায় রাজপুত্র বা রাজকন্যার। তারা সুখে জীবনযাপন করতে থাকে। তাদের ঘিরে থাকে সব সময় ভেসে বেড়ায় প্রেম, ভালোবাসা, সুখ। এর উল্টো পিঠে নিদারুণ অন্ধকার। একা একজন মানুষ- যেন মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা ছাড়া আর কোন কাজ নেই। সঙ্গী হিসেবে আছে হয়তো আছে পোষা বিড়াল বা কুকুর।

পশ্চিমে যারা জীবনযাপন সম্পর্কে প্রথাগত ভাবনায় অভ্যস্ত- তারা এমনটা মনে করেন। কিন্তু একা থাকা হয়তো ততটা কষ্টের নয়। এর ইতিবাচক দিকও আছে। যেখানে মানুষ নিজেকে নিজের সঙ্গী ভাবছে। এমন কিছু উন্মোচিত হচ্ছে- যা যৌথ জীবনে জানা সম্ভব না।

হালের অনেক সেলিব্রিটি জানালেন, নিজেই নিজের সঙ্গী। একা একাই তারা সুখী। এই তো কিছুদিন আগে ভোগ ম্যাগাজিনকে দেওয়া অভিনেত্রী এমা ওয়াটসনের একটি সাক্ষাৎকার শোরগোল তুলেছে। ২৯ বছরের এই অভিনেত্রী স্বামী ও সন্তান ছাড়া জীবনে ‘খুবই সুখী’ বলে জানান। চাপ ও উদ্বেগ মুক্ত জীবনে ‘নিজেকে নিজের সঙ্গী’ করে নিয়েছেন তিনি।

পপ স্টার সেলেনা গোমেজ গানে গানে একা থাকার ইতিবাচক দিক বর্ণনা করেছেন। যেমন; লুজ ইউ টু লাভ মি। নিজের সম্পর্কে মজা করে তিনি বলেন, ‘সুপার, সুপার সিঙ্গেল’। গায়ক জাস্টিন বিবারের সঙ্গে বিচ্ছেদের দুই বছর পার হয়েছে ইতিমধ্যে। পিট ডেভিডসনের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর আরেক গায়িকা আরিয়ানা গ্র্যান্ডে টুইটারে জানান, সুখের বছর অতিবাহিত করছেন। সম্প্রতি যুক্তরাজ্য ট্যুরে গিয়ে গর্বিতভাবে বলেন, ‘সিং ইন সিঙ্গেল’। এই যেন ২০১৭ সালের হিট গান ‘আই উইল নেভার, এভার, এভার, এভার, এভার বি ইয়ুর সাইড চিক’-এর প্রতিধ্বনি।

৩৭ বছরের লন্ডন ভিত্তিক লেখক এবি জ্যাকসন ২০১৫ সালে একাকী জীবনের প্রেমে পড়েন। এর পাঁচ বছর আগে তার বাগদান হয়েছিল। অতীতে কী হারিয়েছেন এর বদলে তার মনোযোগ অবিবাহিত থেকে কী অর্জন করতে পারেন। এখন তিনি অনেক কিছু শিখতে পারছেন। স্বজন, বন্ধু বা সমাজ জীবনের অন্য সম্পর্কগুলোর দিকে বেশি মনোযোগ দিতে পারছেন।

২০১৮ সালের একটি বই প্রকাশ করেন ক্যাথরিন গ্রে। সেখানে তিনি জানান, সুখে সন্ধান করতে গিয়ে কীভাবে কারো সঙ্গে সম্পর্ক জড়ানো থেকে বিরত হন। অপ্রত্যাশিত আনন্দ উল্লেখ করে সেই অভিজ্ঞতাকে তিনি বলেন, ‘দ্য আনএক্সপেক্টেড জয় অব বিয়িং সিঙ্গেল’।

কারো কারো মতে, একাকীত্ব স্বাধীনতা দেয়। কেউ যদি একবার নিজের সঙ্গে থাকার স্বাদ পেয়ে যায়, তার আর কিছুই লাগে না। এমনই ভাবেন ৪৩ বছর বয়সী লেখক-প্রকাশক ডেনিয়েল রেইট। তিনি সিঙ্গেল নারীদের নিয়ে তৈরি গ্রুপ ‘সিঙ্কিসের’ সঙ্গে যুক্ত। তারা নানাভাবে একত্রিত হয়ে একাকী সামাজিক জীবন উপভোগ করেন।

সম্প্রতি পশ্চিয়ে একা থাকার প্রবণতা নারীদের মধ্যে বাড়লেও পুরুষেরা এর বাইরে নয়। ইংল্যান্ডের দক্ষিণ উপকূলের রব স্মিথের বয়স ৩৬। তিনি জানান, পাঁচ বছর ধরে একা আছেন এবং এর সঙ্গে মানিয়ে নিয়েছেন। চাকরির কারণে তাকে অনেক ভ্রমণ করতে হতো। এখন তিনি নিজের স্বাধীনতা ও নমনীয়তাকে মূল্য দেন। প্রেম তাকে অসুখী করেছে বলে জানান। সঙ্গে যোগ করেন, অনেক নতুন ধরনের অভিজ্ঞতা হয়েছে তার, একা না হলে এটি সম্ভব হতো না।

তবে ভবিষ্যতে পরিবারে ফিরতেও পারেন বলে জানান স্মিথ। তার মতে, পুরুষেরা ভাগ্যবান। কারণ তারা অনেক বয়সেও বাবা হতে পারে। কিন্তু নারীদের জন্য কঠিন।

লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিকসের আচরণ বিষয়ক বিজ্ঞানী পল দোলানের সাম্প্রতিক একটি বইয়ের নাম ‘হ্যাপি এভার আফটার’। যেখানে এ গবেষক বলছেন, যে সব নারীরা একা ও সন্তানহীন তারা দীর্ঘ, সুখী ও স্বাস্থ্যবান জীবন পান। এর উদাহরণ হিসেবে হলিউড অভিনেত্রী জেনিফার অ্যানিস্টনের দিকে নজর রাখতে বলেন। তাকে একা নারী হিসেবে বর্ণনা করে দিনের পর দিন ম্যাগাজিনগুলো লেখা ছাপিয়েছে। বাস্তবতা হলো তিনি সুন্দর, সফল ও অবিশ্বাস্য একটি জীবন পেয়েছেন।

তবে ওপরের বর্ণনাগুলোর সঙ্গে খানিকটা ভিন্ন মত দেখা যায় কেট বোলিকের ‘স্পিনস্টার: মেকিং আ লাইফ অব ওয়ান’ বইয়ে। স্মৃতিকথা ও সামাজিক ইতিহাসের মিশেলে বর্ণনা করা হয়েছে এই শতকে বেড়ে ওঠা পাঁচ নারীর কথা। বইটির সহ-লেখক সমাজ সংস্কারক শার্লোট পার্কিন্স জিলম্যান ও কবি এডনা সেন্ট ভিনসেন্ট। তারা জানান, ইতিহাসে সব সময়ই নারীরা যখন শিক্ষা, বৃত্তিমূলক ও অর্থনৈতিক সুযোগ পেয়েছে তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দেরিতে বিয়ে বা বিয়ে না করার প্রবণতাও বেড়েছে।

প্রমাণ হিসেবে বোলিক যুক্তরাজ্যের পরিসংখ্যান অফিস থেকে পাওয়া তথ্য তুলে ধরেন। ২০১৫ সালে বিপরীতে লিঙ্গের মাঝে দুই লাখ ৩৯ হাজার বিয়ে রয়েছে, যা আগের বছর থেকে ৩.৪ শতাংশ কম। তার মতে, অনেক অবিবাহিত নারী ভালো আছে। আর এটাই বাস্তবতা।

নিঃসন্দেহে একা থাকা নিয়ে একেকজন একেকটা মত দেবেন। কিন্তু সমসাময়িক বাস্তবতা ও সম্পর্কের জটিলগুলো হয়তো মানুষকে বেশি বেশি একা করে দিচ্ছে। যে কারণে তারা নিজের অঘ্রাত দিক একাকিত্বের মধ্য দিয়ে আবিষ্কার করছেন। যা হয়তো মানুষকে অনেক আত্মসচেতন করছে। আগের চেয়ে বেশি আত্মবিশ্বাসীও হয়েছে।

দ্য গার্ডিয়ান অবলম্বনে