তরুণী এমপির বক্তব্যে তোলপাড় নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট|179158|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৭ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:৫১
তরুণী এমপির বক্তব্যে তোলপাড় নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট
নিজস্ব প্রতিবেদক

তরুণী এমপির বক্তব্যে তোলপাড় নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্ট

নিউজিল্যান্ডের পার্লামেন্টে জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে বক্তব্য দিতে গিয়ে তুলকালাম কাণ্ড ঘটিয়ে ফেললেন দেশটির তরুণী এমপি ক্লোয়ি সোওরব্রিক।

বিবিসি জানায়, জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে পার্লামেন্টে বক্তব্যে ক্লোয়িকে বাধা দেন অন্য এমপিরা। এ সময় তিনি একজন প্রবীণ আইনপ্রণেতাকে 'ওকে বুমার' বলে মন্তব্য করেন।

তার এই মন্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হলে দেশটিতে রীতিমতো তুলকালাম কাণ্ড ঘটে যায়। প্রবীণ রাজনীতিবিদেরা তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বুমার শব্দটি মূলত ১৯৪৬ সাল থেকে ১৯৬৪ সালের মধ্যে জন্মগ্রহণকারীদের ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়ে থাকে। তারা পরবর্তী প্রজন্মের প্রতি উদাসীন, এমন ক্ষোভ থেকে এই সম্বোধন করা হয়। শব্দটিকে অপমানসূচক হিসেবে দেখে থাকে প্রবীণেরা।

বয়স্ক লোকদের কোনো আচরণের সমালোচনায় তাদের তাচ্ছিল্য করতে টুইটার ও টিকটকের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শব্দটি বহুল পরিচিত।

২০৫০ সালের মধ্যে নিউজিল্যান্ডের কার্বন নিঃসরণ শূন্যের কোটায় নিয়ে আসার একটি বিলের ওপরে বক্তব্য রাখেন তরুণী রাজনীতিবিদ সোওরব্রিক।

তিনি বলেন, 'দশকের পর দশক ধরে ধরে বিশ্বনেতারা জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে কী করেছেন সেটি দেখা গিয়েছে। তারা বরং আরও রাজনৈতিক সুবিধা আদায়ের জন্য এই বিষয়ে কিছু করা থেকে বিরত থেকেছেন। আমার প্রজন্ম এবং পরবর্তী প্রজন্মের সেই আভিজাত্য নেই।'

এই এমপি বলেন, '২০৫০ সালে আমার বয়স হবে ৫৬ বছর। আর বর্তমান ৫২তম পার্লামেন্টের গড় বয়স ৪৯ বছর।'

এই মুহূর্তে পার্লামেন্টের প্রবীণ সদস্যরা তাকে বাধা দেন। এমন সময় ২৫ বছর বয়সী সোওরব্রিক একজন আইনপ্রণেতাকে 'ওকে বুমার' বলে প্রতিক্রিয়া জানান।