সরকারি খরচে ফেরত পাঠানো হবে অবৈধ ১১ হাজার বিদেশিকে|179289|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০
সরকারি খরচে ফেরত পাঠানো হবে অবৈধ ১১ হাজার বিদেশিকে
নিজস্ব প্রতিবেদক

সরকারি খরচে ফেরত পাঠানো হবে  অবৈধ ১১ হাজার বিদেশিকে

পর্যটন ভিসায় আসার পর মেয়াদ শেষেও বিভিন্ন দেশের প্রায় ১১ হাজার নাগরিক বাংলাদেশে অবস্থান করছেন। তারা নানা অপকর্মেও জড়িয়ে পড়ছেন। ইতিমধ্যে গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর চিহ্নিত করা এই বিদেশিদের সরকারি খরচে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। গতকাল বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আইনশৃঙ্খলাসংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব

মো. শহিদুজ্জামানসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা।

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, ভিসার মেয়াদ শেষ হলেও বিদেশি নাগরিকদের অনেকেই বাংলাদেশে থেকে যান। তারা যেন আর না থাকতে পারেন, কারা মেয়াদোত্তীর্ণ অবস্থায় রয়েছেন, তাদের চিহ্নিত করার জন্য আগের যৌথসভায় সিদ্ধান্ত হয়। ইতিমধ্যে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো অবৈধভাবে থাকা বিদেশিদের চিহ্নিত করেছে। চিহ্নিত হওয়া এমন সংখ্যা প্রায় ১১ হাজার হবে। এদের বেশির ভাগই নাইজেরিয়া, তানজানিয়াসহ আফ্রিকান দেশের নাগরিক। নিজ দেশে যাওয়ার কথা বলা হলেও তারা অর্থাভাবে যেতে পারছেন না। আবার বাংলাদেশে তাদের অনেকের নিজ দেশের দূতাবাস নেই। যে কারণে তাদের হস্তান্তর করতে পারছে না সরকার। অবৈধ অভিবাসীরা কারাগারে থেকেও নানান অপরাধে জড়াতে পারে।

তিনি বলেন, সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত হয়েছে, তাদের ফেরত পাঠানোর জন্য অর্থ বরাদ্দ চেয়ে সরকারের কাছে অনুরোধ করা হবে। টাকা বরাদ্দ সাপেক্ষ অবৈধভাবে বসবাসকারী লোকগুলোকে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো হবে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপরাধপ্রবণতা রোধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর রয়েছে জানিয়ে মোজাম্মেল হক বলেন, অনেক রোহিঙ্গা বাংলাদেশের পাসপোর্ট নিয়ে বিদেশে গেছে। সেসব পাসপোর্ট বাতিল করা হয়েছে, নতুন কেউ যেন পাসপোর্ট না পায় সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, মেট্রোরেলের কাজ চলমান থাকায় রাজধানীতে চলাচলের দুর্ভোগ লাঘবেও উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। দুর্ভোগ সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসতে মেট্রোরেল কর্র্তৃপক্ষকে অনুরোধ করা হয়েছে। কাজ শুরুর আগে যেন ঘেরাও করে না রাখা হয়, কাজ শুরুর সময় যেন রাস্তা বন্ধ করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে কমিটির অন্যতম সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, অবৈধ অভিবাসীরা ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও বাংলাদেশে অবস্থান করে অপরাধে জড়িয়ে পড়ছেন। তারা এখন কারাগারে রয়েছেন। তাদের ফিরিয়ে নেওয়ার জন্য দূতাবাসে যোগাযোগ করা হলেও নেওয়া হচ্ছে না। যারা ব্যবসা-বাণিজ্য করতে এসেছিলেন, তাদের ভিসার মেয়াদ শেষে থেকে গেছেন।

এসপি হারুনের বিরুদ্ধে শিগগিরই তদন্ত শুরু : বৈঠক শেষে আয়োজিত ব্রিফিংয়ে নারায়ণগঞ্জের সাবেক পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদের চাঁদাবাজি ও ব্যবসায়ীকে উঠিয়ে নেওয়ার অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, এসপি হারুনকে বিভিন্ন অভিযোগের কারণে সরিয়ে আনা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত শিগগিরই শুরু হবে।

বিয়ার নিয়ে আলোচনা : আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিয়ার উন্মুক্ত করা নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা। তবে এই ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মদ ও বিয়ার বিক্রির লাইসেন্স রয়েছে। বারগুলোতে মদ নিষিদ্ধ নয়। বৈঠকে অনেকে বলেছেন বিয়ার উন্মুক্ত করলে ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক থেকে মানুষ দূরে থাকবে। ধর্মীয়ভাবে বিষয়টি নিয়ে কোনো পক্ষ নেতিবাচক দৃষ্টিতে নিতে পারে। আর সেই কারণে সাবধানতার সঙ্গেই আইনশৃঙ্খলা কমিটি বিষয়টি বিবেচনা করবে।