রেকর্ড বন্যায় জিতল ইংল্যান্ড|179390|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০
রেকর্ড বন্যায় জিতল ইংল্যান্ড
ক্রীড়া ডেস্ক

রেকর্ড বন্যায় জিতল ইংল্যান্ড

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে রেকর্ডের বন্যা ছুটিয়েছেন ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানরা। এই ম্যাচে ডেভিড মালান ও ওয়েন মরগ্যান মিলে নিজেদের টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে বেশ কয়েকটি রেকর্ড নতুন করে লিখেছেন। মালান তুলেছেন টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ড। আর মরগ্যান দ্রুততম হাফসেঞ্চুরির। মরগ্যানকে নিয়ে এই ফরম্যাটে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ তুলেছেন। একই সঙ্গে দুই ব্যাটসম্যানই খেলেছেন ক্যারিয়ার সেরা টি-টোয়েন্টি ইনিংস। এছাড়া তাদের জুটিটি টি-টোয়েন্টিতে তৃতীয় উইকেটে সর্বোচ্চ রানের জুটি। 

এত কিছু মিলিয়ে দুর্দান্ত একটি জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড। স্বাগতিকদের বিপক্ষে ৭৬ রানের বড় জয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ২-২ সমতা এনেছে তারা। আগে ব্যাট করে মালান-মরগ্যান জুটিতে ৩ উইকেটে ২৪১ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ে ইংল্যান্ড। ৫১ বলে ১০৩ করে অপরাজিত ছিলেন মালান আর ৪১ বলে ৯১ করেন মরগ্যান। জবাবে নিউজিল্যান্ড ১৬.৫ ওভারে ১৬৫ রানে অলআউট হয়।

ম্যাচটি জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত করা হতো নিউজিল্যান্ডের। কিন্তু স্বাগতিকদের সেই সুযোগ দেননি মালান ও মরগ্যান। আগে ব্যাট করতে নামা সফরকারীদের শুরুটা ভালো ছিল না। মাত্র ১৬ রানে প্রথম উইকেট হারানো দলটি ৫৮ রানে হারায় দ্বিতীয় উইকেট। সেখান থেকে শুরু হয় দুই ব্যাটসম্যানের ঝড়। ৪৮ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন মালান। এতে অ্যালেক্স হেলসের পর দ্বিতীয় ইংলিশ ব্যাটসম্যান হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরির স্বাদ পান এই বাঁহাতি। এছাড়া নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরি এটি। তৃতীয় উইকেটে মরগ্যানের সঙ্গে ১৮২ রানের জুটি গড়েন মালান, যা এই ফরম্যাটে নন-ওপেনিং জুটি হিসেবে সর্বোচ্চ। টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ রানের জুটিও এটি। আর টি-টোয়েন্টি ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ। ক্যারিয়ার সেরা ৯১ রান করা মরগ্যান মাত্র ২১ বলে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন। ইংল্যান্ডের পক্ষে টি-টোয়েন্টিতে এটি দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড। সব মিলিয়ে নিজেদের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ ২৪১ রান করেছেন ইংলিশরা। টপকেছেন ৮ উইকেটে ২৩০ করা আগের রেকর্ডকে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এটি টি-টোয়েন্টিতে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

এত সব রেকর্ডের চাপে নিউজিল্যান্ড শুরুতেই কুপোকাত হয়ে যায়। তাই লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে চাপ কাটিয়ে উঠতে পারেনি। দুই ওপেনার কলিন মুনরো ২১ বলে ৩০ ও মার্টিন গাপটিল ১৪ বলে ২৭ করে কিছুটা চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু বাকিরা ব্যর্থ। টপ অর্ডারের সবাই ব্যর্থ হওয়ায় সহজেই হারতে হলো নিউজিল্যান্ডকে। নিচের দিকে অধিনায়ক টিম সাউদি ১৫ বলে ৩৯ করে ব্যবধান কমিয়েছেন মাত্র।

 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ইংল্যান্ড : ২৪১/৩ (২০ ওভার) (মালান ১০৩*, মরগ্যান ৯১; স্যান্টনার ২/৩২)। নিউজিল্যান্ড : ১৬৫ (১৬.৫ ওভার) (সাউদি ৩৯, মুনরো ৩০, গাপটিল ২৭; পারকিনসন ৪/৪৭, জর্ডান ২/২৪)।

ফল : ইংল্যান্ড ৭৬ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা :  ডেভিড মালান।