logo
আপডেট : ১০ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:৪৭
ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী উদ্ধারকাজে পুলিশ
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী উদ্ধারকাজে পুলিশ

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোতে হতাহতদের উদ্ধারে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ পুলিশ। ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় বাংলাদেশ পুলিশের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা ও পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ঝড় পরবর্তী উদ্ধারকাজ চালাতে আগে থেকেই পুলিশের সংশ্লিষ্ট ইউনিটগুলোর বিশেষ টিম প্রস্তুত রাখা হয়েছিল।  

রবিবার পুলিশ সদর দপ্তর থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব জানানো হয়েছে।

জরুরি প্রয়োজনে দ্রুত সাড়াদানের জন্য প্রতিটি পুলিশ লাইন্সে প্রয়োজনীয় সংখ্যক রিজার্ভ ফোর্স QRT (Quick Response Team) হিসেবে রাখা হয়েছে। এছাড়া যেকোনো জরুরি প্রয়োজনে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের কন্ট্রোল রুমে ০১৭৬৯৬৯০০৩৩, ০১৭৬৯৬৯০০৩৪ নম্বরে এবং জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ যোগাযোগ করার পরামর্শ প্রদান করেছে পুলিশ।  

দেশের বিভিন্ন জেলার ওপর দিয়ে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল অতিক্রমের সাথে সাথেই সংশ্লিষ্ট এলাকার পুলিশ টিম উদ্ধার কার্যক্রম শুরু করে। পুলিশ সদস্যরা ঘূর্ণিঝড়ে ভেঙে পড়া ও উপড়ে যাওয়া গাছ অপসারণ, ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িঘর মেরামত, ঘূর্ণিঝড় কবলিত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বণ্টন, সাধারণ মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্র থেকে পুনরায় নিজ বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া, আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে হাসপাতালে ভর্তি করা ও সড়ক মেরামতসহ বিভিন্ন মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। পাশাপাশি দুর্যোগকালীন সময়ে কোনো দুষ্কৃতকারী যেন অপরাধ সংঘটিত করতে না পারে- সে ব্যাপারে সতর্ক দৃষ্টি রাখছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানার আগেই পরিস্থিতি মোকাবিলায় সম্ভাব্য সব ধরনের কর্মসূচি গ্রহণ করতে উপকূলীয় সকল জেলার পুলিশ ইউনিটগুলোকে বিশেষ নির্দেশনা প্রদান করেছিল পুলিশ সদর দপ্তর। নির্দেশনা মোতাবেক মানুষ যাতে ঘূর্ণিঝড়ের ব্যাপার সতর্ক হয় এবং দ্রুততার সাথে নিরাপদ আশ্রয় গ্রহণ করে এ জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা নেওয়া হয়। মাইকিং, লিফলেট বিতরণের পাশাপাশি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে গিয়ে পুলিশ সদস্যরা সাধারণ মানুষকে সচেতন করেছে। স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে নিয়ে পুলিশ সদস্যরা সাধারণ মানুষদের আশ্রয় কেন্দ্রে পৌঁছে দিয়েছে। এছাড়া, আশ্রয় কেন্দ্রে সরকারের ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা সব রকম সহযোগিতা প্রদান করছেন পুলিশ সদস্যরা।

ঘূর্ণিঝড় চলাকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলায় খোলা পুলিশের জেলা ও থানা পর্যায়ের ইউনিটগুলোতে কন্ট্রোল রুমের কার্যক্রম এখনো চলমান। তারা সার্বক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি নজরদারি করে মাঠে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে সমন্বয় করছে এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করছে।