প্রতিপক্ষের কর্মী ভেবে সাধারণ ছাত্রের মাথা ফাটাল ছাত্রলীগ|181166|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৭
প্রতিপক্ষের কর্মী ভেবে সাধারণ ছাত্রের মাথা ফাটাল ছাত্রলীগ
চবি প্রতিনিধি

প্রতিপক্ষের কর্মী ভেবে সাধারণ ছাত্রের মাথা ফাটাল ছাত্রলীগ

গায়ে ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সাধারণ সম্পাদকের এক অনুসারীকে মারধর করেন সভাপতির কর্মীরা। পরে সভাপতির কর্মী ভেবে এক সাধারণ শিক্ষার্থীর মাথা ফাটিয়ে দেন সাধারণ সম্পাদকের কর্মীরা।

আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। 

আহতদের একজন ছাত্রলীগকর্মী বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র ভাস্কর চক্রবর্তী। তিনি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপুর অনুসারী হিসেবে পরিচিত। অপরজন বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

তবে নিরাপত্তার স্বার্থে নিজের নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ওই সাধারণ ছাত্র।

রবিবার  সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত কয়েক দফায় এসব ঘটনা ঘটে।

এর আগে বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুর রব হলে আয়োজিত স্কিটো কার্নিভালের কনসার্টে এ ঘটনায় সূত্রপাত।  

ছাত্রলীগ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, স্কিটো কার্নিভালে কনসার্ট চলাকালে গায়ে ধাক্কা লাগায় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেলের অনুসারী ছাত্রলীগকর্মী তনয়কে মারধর করেন সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা।  এতে উভয় পক্ষে হাতাহাতি হয়। এ সময় ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মঞ্চে উঠে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

পরে হলের ঝুপড়িতে থাকা সাধারণ সম্পাদকের অনুসারী ভাস্কর চক্রবর্তীকে মারধর করেন সভাপতির অনুসারীরা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্টে সভাপতির অনুসারী ভেবে বাংলা বিভাগের ওই শিক্ষার্থীকে বেধড়ক মারধর করেন সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা। এতে ওই শিক্ষার্থী মাথায় আঘাত পান। 

চবি মেডিকেলের কর্তব্যরত চিকিৎসক সুশান্ত মহাজন বলেন, আহতদের হাত, পা ও মাথায় আঘাত রয়েছে। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। 

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, এত বড় কনসার্টে ছোটখাটো ধাক্কাধাক্কি হয়ই। আমরা সভাপতির সঙ্গে বসে বিষয়টি মীমাংসা করেছি।

তিনি বলেন, সাধারণ শিক্ষার্থীকে মারধরের বিষয়টি জানা নেই। তবে এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান দেশ রূপান্তকে বলেন, ছোটখাটো ঝামেলা হয়েছিল। ওরা (ছাত্রলীগের নেতারা) নিজেরাই এগুলোর সমাধান করে ফেলেছে।