নিয়ন্ত্রণে থাকুক মাইগ্রেন |181433|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০
নিয়ন্ত্রণে থাকুক মাইগ্রেন

নিয়ন্ত্রণে থাকুক মাইগ্রেন

 মাইগ্রেনের ব্যথা মানেই মাথার অনেক বেশি যন্ত্রণা। দিনে বা রাতে যে কোনো সময় এই ব্যথা শুরু হলে প্রভাব পড়ে সব কাজেই। মাইগ্রেনের ব্যথা সহজে কমানো যায় না বলে আগে থেকেই চেষ্টা করতে হবে যেন ব্যথা না ওঠে। তাই কিছু ব্যাপারে আগে থেকেই সতর্ক থাকতে হবে।

খাবার বিষয়ে সতর্কতা : বেশিরভাগ সময় খাবার বা পানীয়র কারণে মাইগ্রেনের ব্যথা শুরু হয়। ব্যথা শুরু হলেই খেয়াল করুন তার আগে কী খাবার খেয়েছেন। খাবারের পরপরই যদি ব্যথা শুরু হয় তাহলে বুঝতে হবে সেই খাবার খেলে আপনার পরেও সমস্যা হবে। তাই অবশ্যই খাবার বিষয়ে সতর্ক হোন।

ক্যাফেইন পরিহার : একইসঙ্গে মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে এবং কফি ভালোবাসলে এ সমস্যা হতে পারে। মাইগ্রেনের ব্যথায় কফিতে উপস্থিত ক্যাফেইন ব্যথা না কমিয়ে বরং বাড়িয়ে দিতে পারে। ব্যথা কমবে ভেবে কফি পান করার পরও যদি দেখেন ব্যথা বেড়ে গেছে তবে বুঝতে হবে ধীরে ধীরে কফির অভ্যাস বাদ দেওয়াই উত্তম।

বিশ্রাম এবং ঘুম : ঘুমের পরিমাণ কমে গেলেও মস্তিষ্কের নার্ভ দুর্বল হয়ে মাইগ্রেনের ব্যথা বেড়ে যেতে পারে। কর্মস্থলে যদি কাজের চাপ বেশি থাকে এবং বিশ্রাম নেওয়ার সুযোগ না হয় তাহলেও ব্যথার সংক্রমণ হতে পারে। কাজের মধ্যেও চেষ্টা করুন কয়েক মিনিট চোখ বন্ধ করে থাকতে। রাতের ঘুম যেন নিñিদ্র হয় অবশ্যই সেদিকে খেয়াল রাখুন।

দুশ্চিন্তা কমানো : মাইগ্রেনের সমস্যা থাকলে একসঙ্গে অনেক চিন্তা করা যায় না। কারণ অনেক চিন্তা এক সময় দুশ্চিন্তায় পরিণত হয় এবং মাইগ্রেনের সমস্যা দেখা দেয়। মেডিটেশন, ব্যায়াম, কাউন্সেলিং, ছবি আঁকার মতো যে কাজটাই ভালো লাগে সেটি করলে দুশ্চিন্তা দূরে থাকবে।

পানি খাওয়া : নিয়মিত পানি পানে শরীর ডিহাইড্রেটেড থাকে বলে মাইগ্রেন সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়।