কোনো মাদ্রাসা জঙ্গি তৈরি করে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী|186089|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৯:০৩
কোনো মাদ্রাসা জঙ্গি তৈরি করে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

কোনো মাদ্রাসা জঙ্গি তৈরি করে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কোনো মাদ্রাসা জঙ্গি তৈরি করে না উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ইসলামে এটার কোনো স্থান নেই।

মঙ্গলবার রাজধানীর বসুন্ধরায় ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে দুই দিনব্যাপী ‘উগ্রবাদ-বিরোধী জাতীয় সম্মেলন ২০১৯’ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কোনো মাদ্রাসা জঙ্গি তৈরি করে না। কেননা ইসলামে এটার কোনো স্থান নেই। তাছাড়া বিশ্বের কোনো ধর্মেই মানুষ হত্যাকে বিশ্বাস করে না। সমাজকে বুঝতে হবে কেন তাদের সন্তান জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ছে। জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পড়ার কারণ খুঁজে বের করতে হবে।

অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের খেয়াল রাখতে হবে আমাদের ছেলেমেয়ে যেন নিঃসঙ্গতা, বিষণ্নতা ও একাকিত্বে না ভোগে। তাদের বিভিন্নভাবে কাজে যুক্ত করতে হবে। তাহলে তাদেরকে আমরা জঙ্গিবাদের মতো মতবাদ বা চিন্তা-ভাবনা থেকে দূরে রাখতে পারব।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমি সবাইকে অনুরোধ করব ইন্টারনেটে কোনো কিছু দেখে সহজে বিশ্বাস না করতে। শুধুমাত্র নিশ্চিত হলেই সেটা বিশ্বাস করা উচিত। নিজেদের বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগাতে হবে।’

জঙ্গি দমনে আমরা অনেকটাই সফল হয়েছি উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জঙ্গিবাদবিরোধী ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি ঘোষণা করেছিলেন, জঙ্গিবাদ দমনের জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন, সেই কাজটি আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দক্ষতার সঙ্গে করেছে।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, এ দেশের মানুষ শান্তিপ্রিয়, তারা কখনো জঙ্গিবাদ পছন্দ করে না। শান্তি প্রিয় এই দেশে জঙ্গি, সন্ত্রাস আসবে এটা কোনোভাবেই বিশ্বাস করা যায় না। আমাদের হাজার বছরের ইতিহাসে যুদ্ধ-বিগ্রহ হয়েছে, কিন্তু জঙ্গি-সন্ত্রাসের কাহিনী ছিল না।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী ও ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার (ডিএমপি) মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম প্রমুখ বক্তৃতা করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম।

ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট (সিটিটিসিইউ), ইউএসএইড ও জাতিসংঘের (ইউএন) যৌথ উদ্যোগে দুই দিনব্যাপী এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

সোমবার এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এতে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ, ধর্মীয় প্রতিনিধি, সাংবাদিক ও বিদেশি কূটনীতিকরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।